ক্যাম্পাস

ঢাবিতে আবরারের গায়েবানা জানাজায় ছাত্র জনতার ঢল

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ক্যাম্পাসে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদের গায়েবানা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জানাজায় অংশ নিতে ঢাবির রাজু ভাস্কর্য এলাকায় ছাত্র জনতার ঢল নামেছে।বুধবার (৮ অক্টোবর) দুপুর সোয়া বারোটায় ঢাবির রাজুভাস্কর্যের পাদদেশে গায়েবানা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ গয়েবানা জানাজার আয়োজন করে।এ সময় ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হোসেনের ইমামতিতে নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।নামাজের আগে উপস্থিত ছাত্রজনতার উদ্দেশে আখতার বলেন, আবরারকে যখন মারা হয় তখন তার মুখ বেধে রাখা হয়। আবরার হয়ত বাঁচতে চেয়েছিল, কিন্তু খুনিরা তাকে বাঁচতে দেয়নি। আজকে আবরার নেই। কিন্তু আবরারের আদর্শকে ধারণ করে আমরা তাকে বাঁচিয়ে রাখব। আমরা আমাদের হ্রদয়ে আবরারের চেতনাকে ধারণ করব। এ সময় আবরারের খুনিদের বাঁচাতে কোনো ধরণের টালবাহনা করলে ছাত্র সমাজ তার সমুচিত জবাব দেবে বলেও জানান তিনি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন, যুগ্ম আহ্বায়ক রাশেদ খান সহ শত শত সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ। উল্লেখ্য, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভারতের সঙ্গে চুক্তি বিরোধী স্ট্যাটাস দিয়ে ছাত্রলীগ নেতাদের হাতে খুন হন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ।সোমবার (৭ অক্টোবর) ভোর ৪টার দিকে ফাহাদের মৃতদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ। পরে ময়নাতদন্তের জন্য মৃতদেহটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ।আবরার ফাহাদ ইলেকট্রিক্যাল এবং ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র ছিলেন। তিনি শেরেবাংলা হলেই থাকতেন। আবরারকে হত্যার ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল ও সহ-সভাপতি মুস্তাকিন ফুয়াদসহ ছাত্রলীগের কয়েক জনকে আটক করেছে পুলিশ।

Comments

comments

Related Articles