রাত ৯:১৮ সোমবার ১৪ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং

শুভেচ্ছা আর ভালোবাসায় সিক্ত আবুল হায়াত

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৯ , ৫:১১ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : সাহিত্য ও সংস্কৃতি
পোস্টটি শেয়ার করুন

অনুষ্ঠানে এসে অনেকেই ‘সার্থক জনম তোমার হে শিল্পী নিপুণ’ বইটি হাতে নিয়ে বাবাকে নিয়ে লেখা বিপাশা হায়াতের লেখাটা বারবার খুঁজছিলেন সবাই। খুঁজতে খুঁজতে বইটির একেবারেই শেষ অংশে মিললো বাবাকে উদ্দেশ্য করে বিপাশা’র লেখা। বিপাশার এই লেখাটি বইয়ের শুরুতেই কিংবা মাঝখানে থাকতো পারতো। কিন্তু আবুল হায়াত অন্যান্য সবাইকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে নিজের কন্যার লেখাটি সবার শেষেই রাখলেন। আবুল হায়াত এমনই, জীবন চলার পথে তিনি কোনদিন পক্ষপাতিত্ব করেননি। যাকে যখন যেভাবে গুরুত্ব দেয়া প্রয়োজন তিনি সেভাবেই তা করেছেন। বিপাশা হায়াত বাংলাদেশের নাট্যাঙ্গনের একজন প্রতিথযশা অভিনেত্রী, কিন্তু আবুল হায়াতের কাছে তার আদুরে কন্যা। তাই স্নেহের কন্যার লেখাটি শেষ অংশেই রাখলেন। বাবাকে উদ্দেশ্য করে লেখাটি যখন বিপাশা হায়াত গেলো রবিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর শিল্পীকলা একাডেমির নৃত্যকলা ও সঙ্গীত বিভাগের মিলনায়তনে সবার সামনে দাঁড়িয়ে পড়ছিলেন, বিপাশার আবেগের সাথে সবার আবেগ মিশে গিয়ে যেন একাকার হয়ে গিয়েছিলো। এমন একজন কিংবদন্তী বাবার ৭৫’তম জন্মদিনে এমন যোগ্য সন্তানের কন্ঠে আবেগময় কথা যেন সবাইকে কিছুক্ষণের জন্য হলেও দূর কোথাও নিয়ে গিয়েছিলো। আবুল হায়াতের ৭৫’তম জন্মদিন উদযাপন এবং তাকে নিয়ে লেখা বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে তাকে নিয়ে স্মৃতিচারণ এবং ফুলেল শুভেচ্ছা জানান অনেকেই। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছেন আতাউর রহমান, দিলারা জামান, মামুনুর রশীদ, ড. ইনামুল হক, গোলাম রব্বানী, আব্দুস সেলিম, ডলি জহুর, সারা যাকের, নওয়াজীশ আলী খান, খায়রুল আলম সবুজ, ওয়াহিদা মল্লিক জলি, জাহিদ হাসান’সহ আরো অনেকে। শুরতেই বিধূ’র নৃত্য পরিবেশনের মধ্যদিয়ে আবুল আয়াতের জীবনের আরেক আলোকিত অধ্যায়ের যাত্রা শুরু হয়। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন নিমা রহমান ও অভিনয়শিল্পী সংঘের সাধারণ সম্পাদক অভিনেতা আহসান হাবিব নাসিম। অনুষ্ঠানে দুটি সঙ্গীত পরিবেশন করেন ফারহিন খান জয়িতা। আবৃত্তি করেন জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় ও মুনিরা ইউসুফ মেমী। সকলের বক্তৃতা শেষে আরো ফুলেল শুভেচ্ছা জানান ডিরেক্টরস গিল্ড’, নির্মাতা গাজী রাকায়েত, তারিকুল ইসলামসহ আরো অনেকেই। অনুষ্ঠানে আবুল হায়াতের স্ত্রী শিরীন হায়াত, দুই সন্তান বিপাশা হায়াত, নাতাশা হায়াত, দুই মেয়ের জামাই তৌকীর আহমেদ, শাহেদ শরীফ খান’সহ নাতি নাতনীরাও উপস্থিত ছিলেন। আবুল হায়াত বলেন,‘ এক জীবনে আমি অনেক মানুষের ভালোবাসা পেয়েছি। তবে এটা সত্যি আমি আমার পরিবারকে সময় দিতে পারিনি। আমার স্ত্রী পুরো পরিবারকে আগলে রেখে আজকের এই পর্যায়ে নিয়ে এসেছেন। তার প্রতি আমার কৃতজ্ঞতার শেষ নেই। অভিনয় করেই আমি দর্শকের ভালোবাসা পেয়েছি। অভিনয় করতে করতেই আমি মৃত্যুকে বরণ করতে চাই। এটাই আমার জীবনের শেষ ইচ্ছে।’ ‘সার্থক জনম তোমার হে শিল্পী সুনিপুণ’ বইটি সম্পাদনা করেছেন জিয়াউল হাসান কিসলু এবং প্রকাশ করেছে ‘প্রিয় বাংলা’।

Comments

comments