রাত ৮:০২ বুধবার ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

যশোরের বাগআঁচড়া ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের মতবিনিময় | কাঠালিয়ায় মাদকদ্রব্য উদ্ধারে সহায়তা করায় গ্রাম পুলিশকে পুরুস্কৃত করলেন ওসি | পলাশবাড়ীতে ৬৫ বোতল ফেন্সিডিল সহ এক মহিলা আটক | বীরগঞ্জে সাপের কামড়ে কিশোরের মৃত্যু | মির্জাপুরে বজ্রপাতে কৃষকের মৃত্যু | বীরগঞ্জে ছিনতাইকারী ডলার চক্রের প্রতারক ওসি পরিচয়দানকারী গ্রেফতার | পরিচ্ছন্নকর্মীর জন্য গাবতলী সিটি পল্লীতে আবাসনের ব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে: মেয়র আতিকুল | বাজারে এলো ৫ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারিযুক্ত ‘অপো এ৯ ২০২০’ | ক্যাশ রিসাইক্লিং মেশিন উদ্বোধন করলো ইসলামী ব্যাংক | প্রিমিয়ার ব্যাংক এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর |

আফগানিস্তানে গাড়িবোমায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৯

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : জুন ২২, ২০১৭ , ৬:০৬ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : আন্তর্জাতিক
পোস্টটি শেয়ার করুন

আফগানিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলের হেলমান্দ প্রদেশের লস্করগাহ শহরের একটি ব্যাংকের বাইরে শক্তিশালী গাড়ি বোমা বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৯ জন। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও অন্তত ৬০ জন। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। খবর আল জাজিরার।

হেলমান্দ প্রদেশের গভর্নর হায়াতুল্লাহ হায়াত জানান, হতাহতদের বেশিরভাগই বেসামরিক নাগরিক। লস্করগাহ শহরের কাবুল ব্যাংকের সামনে হামলার ঘটনা ঘটেছে। হামলায় ৬০ জন আহত অপস্থায় চিকিৎসা নেয়ার তথ্য জানিয়েছেন তিনি।

আফগানিস্তানভিত্তিক বার্তা সংস্থা টলো নিউজ বলছে, গাড়ি বোমা বিস্ফোরণের পর বন্দুকধারীরা সেখানকার একটি ব্যাংকে প্রবেশ করে। এসময় বন্দুকধারীদের সঙ্গে নিরাপত্তা রক্ষীদের গুলি বিনিময় শুরু হয়।

কাবুল ব্যাংকে আফগান সেনাবাহিনী থেকে শুরু করে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বেতন তোলার জন্য লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন। ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ছুটি শুরুর আগে ব্যাংক থেকে বেতন নেয়ার জন্য এসেছিলেন তারা। সেখানেই এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী আফগানিস্তানের সীমান্ত পুলিশ ইসমাতুল্লাহ বলেন, অল্প সময়ের মধ্যে অনেককেই আমরা হারিয়েছি। তবে আমরা চেষ্টা করেছি, যতো দ্রুত সম্ভব আহতদের হাসপাতালে পাঠানোর জন্য। অনেক শিশুকে আমরা হাসপাতালে পাঠিয়েছি।

ব্যাংকের অদূরে দাঁড়িয়ে কাঁদছিল ১২ বছরের হোসনিয়া। ঈদ উপলক্ষে জুতা কিনে দেয়ার জন্য বাড়ি থেকে তাকে তার বাবা নিয়ে এসেছিলেন। গাড়ি বোমা বিস্ফোরণে বাবা মারা গেছেন। জুতা হয়তো নিতে পারবে সে, কিন্তু বাবাকে আর কোনো দিনই ফিরে পাবে না হোসনিয়া।

কাঁদতে কাঁদতে হোসনিয়া জানিয়েছে, আমার বাবা আর ভাইকে কোথাও খুঁজে পাইনি। বাবা আমাকে জুতা কিনে দেয়ার জন্য নিয়ে যাচ্ছিল। এখানে আসার পর বিস্ফোরণ ঘটেছে।

তাৎক্ষণিকভাবে কোনো গোষ্ঠী এ ঘটনার দায় স্বীকার করেনি। তবে সাম্প্রতিক কয়েক মাসে তালেবান এবং ইসলামিক স্টেট (আইএস) ওই এলাকায় আত্মঘাতী হামলা চালিয়ে আসছে।

Comments

comments