রাত ২:৪১ বুধবার ২০শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

কালো তালিকাভুক্ত হচ্ছে অর্ধশতাধিক ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান | ‘আমার বিরুদ্ধে অনুসন্ধান চালালে অনেক এমপি-মন্ত্রীর যাবজ্জীবন দণ্ড হবে’ | লবণ নিয়ে গুজব ছড়ালে কঠোর ব্যবস্থা: প্রেস নোট | দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী | শার্শায় গুজব রটিয়ে বেশী দামে লবন বিক্রি করায় ৩ অসাধু লবণ ব্যবসায়ী আটক | এক কেজির বেশি লবণ কিনলেই আটক করছে পুলিশ | সিরাজদিখানে অতিরিক্ত দামে লবন কেনা-বেচার দায়ে ৬ ক্রেতা বিক্রেতা আটক | চাটমোহরে বিডি ক্লিন’ সংগঠনটির স্বেচ্ছায় আবর্জনা পরিষ্কার | ইলিশায় প্রতিবন্ধীদের সিআরএ রিপোর্ট বৈধকরণ সভা অনুষ্ঠিত | তালতলীতে বেশী দামে লবণ বিক্রি করায় ৩ ব্যবসায়ীকে জরিমানা, একটি সিলগালা |

পুঠিয়ায় নারীর ঝুলান্ত লাশ উদ্ধার: হত্যার অভিযোগ

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৭ , ১১:৪৩ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : রাজশাহী
পোস্টটি শেয়ার করুন

পুঠিয়া প্রতিনিধি:
রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার শিলমাড়িয়া ইউনিয়নে নারীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার দুপুর দেড়টার দিকে ওই নারীর নিজ বাড়ির একটি পরিত্যাক্ত ঘর থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। তবে ওই নারীর স্বজনদের দাবী তাকে হত্যা করে ওই পরিত্যক্ত ঘরের তিরের সাথে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।

মৃত ওই নারীর নাম শেফালী বেগম (৪০) সে উপজেলার শিলমাড়িয়া ইউনিয়নের সাধনপুর গ্রামের শহিদুল ইসলামের স্ত্রী।

উদ্ধারকৃত লাশটি ময়নাতদন্তে জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুঠিয়া থানা পুলিশ। এব্যপারে মৃত ওই নারীর ছেলে রতন মাহমুদ পুঠিয়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার এজাহারে তিনি উল্লেখ করেন, গত বৃহস্পতিবার রাত ৯ টার দিকে তাদের বাড়ির একটি পরিত্যক্ত ঘরের তিরের সাথে তার মা শেফালী বেগমের ঝুলন্ত লাশ দেখে সঙ্গে সঙ্গে সেখান থেকে লাশটি নামানো হয়। ঘটনার পরের দিন বেলা ১২ টার দিকে পুঠিয়া থানা পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে প্রথমে পুঠিয়া থানা ও পরে রামেক হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়। পরিবারের অভাব অনটনের কারনে শেফালী বেগম আত্মহত্যা করেছে বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে।

এদিকে মৃত্য শেফালী বেগমের ভাই রেজাউল করিম দাবী করেন, তার বোন শেফালীকে হত্যা করে তার লাশ তিরের সাথে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা নাটক করা হচ্ছে।

তিনি জানান, ঘটনার দু’দিন আগে শেফালী বেগমের স্বশুর জয়নাল আলী ও দেবর আফজাল হোসেন তার বোন শেফালীকে মারধর করে আহত করে। ঘটনার পর থেকে তারা দু’জনই বাড়িতে নেই বলে স্থানীয়রা নিশ্চিত করেছেন। রেজাউল করিম দাবী করেন তারা দু’জনে মিলে তার বোন শেফালী বেগমকে হত্যা করে একটি পরিত্যক্ত ঘরের তিরের সাথে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যার নাটক সাজিয়ে আত্মগোপনে রয়েছে।

এব্যাপার মৃতের ভাই রেজাউল করিম বাদী হয়ে জয়নাল আলী ও আফজাল হোসেনকে আসামী করে হত্যা মামলা করতে চাইলে পুলিশ মামলা নেয়নি।

এব্যপারে পুঠিয়া থানার ওসি তদন্ত রাকিবুল হাসান জানান, মৃতের ভাইয়ের আগেই তার ছেলে রতন মাহমুদ অপমৃত্যু মামলা করায় তার হত্যা মামলাটি নেওয়া হয়নি। লাশ ময়নাতদন্দের জন্য রামেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট এলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন পুঠিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) খন্দকার খালেদ বিন নূর তিনি জানান, প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে এটি আত্মহত্যা কিন্তু আত্মহত্যার কারণটি যথাপুযুক্ত নয়।

হত্যার অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মৃতে শরিরে কোন আঘাতের চিহৃ পাওয়া যানি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে রিপোর্ট এলে নিশ্চিত হওয়া যাবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা।

Comments

comments