রাজধানী

টঙ্গী-গাজীপুর মহাসড়কে তীব্র যানজট: বাস যাত্রীদের চরম ভোগান্তি

এস,এম মনির হোসেন জীবন, টঙ্গী গাজীপুর থেকে ফিরে : ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের গাজীপুর মহানগরী শিল্প নগরী টঙ্গী সহ বিভিন্ন সড়কের থেমে থেমে চলছে যানবাহন। ঈদ যাত্রীরা বাড়ি ফেরার পথে টঙ্গী ও গাজীপুরে প্রায় ৩০ কিলোমিটার সড়কে গতকাল বৃহস্পতিবার ছিল যানজট। ফলে এ রুটের দূর পাল­ার বাস যাত্রীরা চরম ভোগান্তি আর অহেতেুক হয়রানীর শিকারে পড়েন। টঙ্গী ব্রিজ থেকে শুরু করে গাজীপুর মহানগরীর ভোগড়া বাইপাস পর্যন্ত এবং টঙ্গী- কালিগঞ্জ সড়কে টঙ্গী স্টেশন রোড থেকে শুরু করে মাজুুখান সড়ক, টঙ্গী কামারপাড়া ব্রিজ থেকে আশুলিয় বেরীবাঁধ হয়ে জামগড়া সড়কের চন্দ্র রোড সহ বিভিন্ন রুটে প্রায় ৪০ কিলোমিটার সড়কে ঈদের আগে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। প্রবল বৃষ্টির মধ্যে উত্তর বঙ্গের সাথে ২৭টি রুটে সড়ক ও মহাসড়কে থেমে থেমে চলছে বিভিন্ন রুটের শতশত যানবাহন। এতে করে ঈদের আগে এসব রুটে চলাচলরত বাস যাত্রীরা পবিত্র রমজান মাসে চরম ভোগান্তি আর নানা ভাবে হয়রানীর শিকার হচেছন।প্রবল বর্ষণে এ মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে খানাখন্দ এবং সড়কে পানি থাকায় টঙ্গী-গাজীপুর মহাসড়ক সহ বিভিন্ন রুটে তীব্র যানজট অব্যাহত রয়েছে।

টঙ্গী অঞ্জলের ট্রাফিক পুলিশের টিআই মো: আনিছুর রহমান জানায়, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের টঙ্গী পর্যন্ত মহাসড়কে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া বোর্ড বাজার, সাইনবোর্ড, মালেকের বাড়ি, বাসন সড়ক, বর্ষা সিনেমা হল সংলগ্ন ও ভোগড়া বাইপাস এলাকায় বৃষ্টির পানি জমে থাকায় এবং রাস্তা ভাঙাচোরা থাকার কারণে যানবাহন ধীর গতিতে চলছে। ফলে ওই এলাকাতেও তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে বাম দিকে কর্দমাক্ত থাকায় বড় গাড়িগুলো এক লাইন দিয়েই চলছে। সৃষ্টি হওয়া যানজটের কারণে গতকাল টঙ্গী থেকে চান্দনা চৌরাস্তা পর্যন্ত আসতে অনেকের ২ থেকে ৪ ঘণ্টা পর্যন্ত সময় লেগেছে। এ ধারাবাহিকতা গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যš —অব্যাহত আছে।

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের কোনাবাড়ি থেকে কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা ত্রিমোড় পর্যন্ত প্রায় ১৫ কিলোমিটার সড়কে থেমে থেমে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টি ও চার লেনের কাজের কারণে মহাসড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়। বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত এরুটের তীব্র যানজট এখন ও অব্যাহত রয়েছে।
সালনা হাইওয়া থানার (ওসি) হোসেন সরকার জানান, কালিয়াকৈরের বংশাই ব্রিজে রাত তিনটা পর্যন্ত মেরামতের কাজ চলেছে। ওই এলাকায় যানবাহন এক লেনে চলার কারণে চন্দ্রা এলাকায় যানবাহনের চাপ বেড়েছে। এজন্য বৃষ্টির মধ্যে থেমে থেমে ধীর গতিতে যানবাহন চলছে।

তিনি আরো জানান, মহাসড়কে চার লেনের কাজ চলছে। বাম দিকে কর্দমাক্ত থাকায় বড় গাড়িগুলো এক লাইন দিয়ে চলছে। ফলে গাড়ির লাইন দীর্ঘ হয়েছে। টঙ্গী- গাজীপুর রুটের যাত্রী আনোয়ার ও লাকী আক্তার জানান, তিনি গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় টঙ্গী বাজার থেকে জয়দেবপুরগামী বলাকা বাসে ওঠেন। বিকেল সাড়ে ৫ টায় পর্যন্ত তিনি হারিকেন পর্যন্ত যেতে পেরেছেন।
হাইওয়া থানার (ওসি) হোসেন সরকার জানান, সকালে অফিসগামী পরিবহনের চাপ রাস্তায় বেশি। রাস্তা থেকে বিভিন্ন যানবাহন মহাসড়কে উঠতে ও নামতে থাকায় বিভিন্ন স্থানে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। কোনাবাড়ি, মৌচাক সফিপুরসহ বিভিন্ন স্থানে রাস্তায় আইনশৃংখলা বাহিনী যানজট নিরসনে কাজ করলেও সড়কে অধিক যানবাহনের চাপ থাকায় মহাসড়কে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।
টঙ্গী অঞ্জলের ট্রাফিক পুলিশের টিআই মো: আনিছুর রহমান জানায়, গাজীপুরের মহাসড়কের অধিকাংশ রাস্তাঘাট খারাপ। সে কারনে সড়ক ও মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। ঈদের আগে ও প্রবল বৃষ্টিপাতে রাস্তায় যানজট নিরসনে কাজ করছে জেলা ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা।

ঢাকা উত্তর ট্রাফিক বিভাগের উত্তরা এলাকার টিআই মো: মজিবুর রহমান মুজিব জানান,গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরের পর টঙ্গী ব্রিজ আব্দুল­াহপুর কামারপাড়া সড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। বিকেলের পর এরুটের যানজট ব্যাপক আকার ধারণ করে। যানজট নিরসনে উত্তরা ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা সড়ক ও মহাসড়কে থেকে দায়িত্ব পালনে নিযোজিত আছে।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.