আন্তর্জাতিক

ফাউসিকে এত পছন্দ, অথচ আমাকে অপছন্দ; ট্রাম্পের আক্ষেপ


কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবেলায় যুক্তরাষ্ট্রের টাস্কফোর্সের সদস্য ড. অ্যান্থনি ফাউসির বক্তব্য ও নীতি ব্যাপকভাবে সমর্থন করছেন মার্কিনিরা। ঠিক উল্টো চিত্র প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বেলায়। করোনাভাইরাস নিয়ে প্রেসিডেন্টের বক্তব্য ও নীতির সমালোচনার শেষ নেই। এ নিয়ে আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের প্রশ্ন, ফাউসি তার প্রশাসনেরই লোক। অথচ ফাউসিকে লোকজন পছন্দ করছেন কিন্তু প্রেসিডেন্টকে করছেন না।এর কারণ জানতে চেয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

২৮ জুলাই হোয়াইট হাউসে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এসব কথা বলেন।

ট্রাম্প বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, ফাউসি করোনাভাইরাস নিয়ে ভালো রেটিং পান, আমি পাই না। যে লোকটি আমাদের সঙ্গে কাজ করেন তাঁকে পছন্দ করা হয়, অথচ আমাকে করা হয় না। এটা হতে পারে আমার ব্যক্তিত্বের কারণে।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে দেশটির শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ প্রাদ প্রদীপের নিচে চলে আসেন। যুক্তরাষ্ট্রের বাইরেও সারাবিশ্বে তার নাম ছড়িয়ে পড়ে। তার নীতি ও পরামর্শগুলো করোনা মোকাবেলায় কার‌্যকর বলে মনে করছে বিশ্ববাসী।

যুক্তরাষ্ট্রের অধিকাংশ লোকজন করোনাভাইরাস মোকাবেলায় তার প্রয়াসকে সমর্থন করেন। অন্যদিকে, করোনা মোকাবিলায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কর্মকাণ্ডকে থোরাই গুরুত্ব দিচ্ছেন। উল্টো করোনাকে গুরুত্ব না দেয়ায় ব্যাপক সমালোচনার মধ্যে পড়েন ‘একরোখা’ প্রেসিডেন্ট।

এ নিয়ে ট্রাম্প প্রশ্ন রাখেন,ফাউসি তাঁর প্রশাসনেই কাজ করেন। অথচ জনগণ কেন তাকে পছন্দ না করে ফাউসিকে বেশি পছন্দ করছে?

অ্যান্থনি ফাউসি একজন পেশাদার সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ হিসেবে বিতর্ক এড়িয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। ভাইরাস নিয়ে নিজের আশঙ্কা, ভ্যাকসিন আগমনের সঠিক বার্তা দিয়ে আসছেন।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প করোনার মাঝেই প্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দিয়ে দ্রুত অর্থনীতির চাকা সচল করতে চান, অথচ ফাউসি শুরু থেকেই এর বিপক্ষে ছিলেন। স্কুল খুলে দেয়ার পক্ষে ট্রাম্প, ফাউসির তার বিপক্ষে। মাস্ক পরা, সমাবেশ করা এসব নিয়েও ফাউসির সঙ্গে ট্রাম্পের সম্পর্কের চরম অবনতি ঘটে। একপর্যায়ে ফাউসিকে ট্রাম্প বরখাস্ত করছেন বলে সংবাদমাধ্যমে জল্পনাকল্পনাও শুরু হয়। করোনাভাইরাসে চিকিৎসায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন কাজ করবে বলে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নিজেই ঘোষণা দেন। আবার এসব নিয়ে ফাউসি আমেরিকার জনগণকে বিভ্রান্ত করছেন বলেও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প টুইট করেন।পরে যুক্তরাষ্ট্রের জনগণ ফাউসির বক্তব্যকেই গ্রহণ করেন।

জরিপে দেখা গেছে যুক্তরাষ্ট্রের ৬৭ শতাংশ লোক করোনাভাইরাস নিয়ে ফাউসিকে গ্রহণযোগ্য মনে করেন। যদিও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বোধগম্য হচ্ছে না, জনগণ তাকে নয়, ফাউসির কাজকর্মকে কেন বেশি অনুমোদন করছেন।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button