আন্তর্জাতিক

কঠিনতম স্বাস্থ্য সঙ্কটের মুখোমুখি ডব্লিউএইচও: গেব্রিয়েসাস


করোনাভাইরাস মহামারিতে তারা সবচেয়ে খারাপ স্বাস্থ্য সঙ্কটের মুখোমুখি বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা ডব্লিউএইচও। সোমবার জেনেভায় একটি অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে সংস্থার মহাপরিচালক টেডরোস আধানম গেব্রিয়েসাস এ কথা বলেছেন।

বিশ্বে দেড় কোটির বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। প্রথমদিকে ভাবা হয়েছিল, লকডাউন করে করোনা সংক্রমণ রুখে দেয়া যাবে। কিন্তু লকডাউন উঠে যাওয়ার পরে বহু দেশে করোনার প্রকোপ বাড়ছে। কিছু ক্ষেত্রে করোনামুক্ত এলাকায় নতুন করে ফিরে আসছে সংক্রমণ। আর তাতেই আশঙ্কার মেঘ দেখছে ডব্লিউএইচও।

টেডরোসের মতে, মাস্ক পরা, দূরত্ব বিধি বজায় রাখার মতো ব্যবস্থা কঠোরভাবে মেনে চললেই সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি কমানো যাবে। এই প্রসঙ্গে কানাডা, চীন, অস্ট্রেলিয়া, জার্মানি এবং দক্ষিণ কোরিয়ার প্রশংসাও করেন তিনি। ডব্লিউএইচও’র মহাপরিচালক বলেন, যেখানে এই নিয়ম কঠোরভাবে মেনে চলা হয়েছে, সেখানে সংক্রমণ কমেছে। যেখানে হয়নি, করোনা দ্রুত ছড়িয়েছে।

ডব্লিউএইচও’র জরুরি বিভাগের শীর্ষ কর্মকর্তা মাইক রায়ানের মতে, অনির্দিষ্টকালের জন্য সব দেশের সীমান্ত বন্ধ রাখা যাবে না। তবু দূরত্ব বিধি মেনে চলাই করোনা রোধের অন্যতম উপায়।

উল্লেখ্য, বিশ্বজুড়ে করোনায় আক্রান্ত ১ কোটি ৬৮ লাখ ছাড়িয়েছে। আর মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ৬৩ হাজার মানুষের। সুস্থ হওয়ার সংখ্যা ১ কোটি ৪ লাখ ৫৬ হাজার ছাড়িয়েছে। বর্তমানে বিশ্বে ‘অ্যাকটিভ’ করোনারোগী আছে ৫৭ লাখ ৭৩ হাজার।

 


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button