দেশজুড়ে

কাহালু ও নন্দীগ্রাম বাসীর পাশে জেলা যুবদল নেতা এম. এ রাজ্জাক সুমন


সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত উদ্যোগে বগুড়া জেলার কাহালু ও নন্দীগ্রাম বাসীর জন্য অভাবনীয় এক কাজ করে যাচ্ছেন জেলা যুবদল নেতা এম. এ রাজ্জাক সুমন।

শুরুতে প্রতিদিন ২০০০ আসহায় মানুষকে একবেলা রান্না করা খাবার ও প্রয়োজনে নগদ অর্থ তাদের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিয়েছেন, এখন সে সংখ্যা ৩০০০ এ পৌঁছে গেছে।

এম.এ রাজ্জাক সুমন এর উদ্যোগে প্রতিদিন মোট ১৭০ জন ভলেনটিয়ার ৩৭ টি মটোরসাইকেল ব্যবহার করে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাবার পৌছনোর কাজ অব্যাহত রেখেছেন।

শুধু খাবার বিতরনই নয় পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক সচেতনেতা মূলক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। করোনা ভাইনাস সংক্রমন হতে নিরাপত্তার জন্য ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীদের মাঝে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী সরবরাহ করেন শিশু হাসপাতাল সহ কাহালু উপজেলা হেলথ কমপ্লেক্স এবং নন্দীগ্রাম উপজেলা হেলথ কমপ্লেক্সে।

এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী চিকিৎসক পরিষদ বগুড়া জেলা শাখার ড্যাবের সেক্রটারি ডা. রোজ এর নিকট ডাক্তারদের জন্য ও শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে, বগুড়া শিশু হাসপাতালের ব্যাবস্থাপক সজল এর নিকট পি পি ই, সেফ শিল্ড এবং অন্যান্য স্বাস্থ সুরক্ষা সামগ্রী হস্তান্তর করেন সাবেক জেলা যুবদল নেতা ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এম.এ রাজ্জাক সুমনের পক্ষ থেকে এ কে আজাদ (সাবেক সভাপতি বি এন পি নন্দীগ্রাম থানা) এবং সাবেক নন্দীগ্রাম উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান,এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বগুড়া জিলা স্বেচ্ছা সেবক দল নেতা আহাদ আলী।

আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সহ স্থানীয় প্রশাসন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের জন্য স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রীর ব্যবস্থা করে দিয়েছেন এই যুবনেতা।

শুধু তাই নয়, এই মহা সংকটের সময় সাধারণ মানুষের দুরবস্থা বিবেচনা করে বগুড়া শহরস্থ তার বাড়ি ও দোকানপাটের সমস্ত ভাড়াটিয়ার তিন মাসের ভাড়াও তিনি মওকুফ করে দিয়েছেন।

জনাব এম.এ রাজ্জাক সুমন বলেন, বরাবার দেশ ও জাতির ক্রান্তিকালে শহীদ জিয়া যেমন এদেশের ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন, আমরা সেই শহীদ জিয়ার সৈনিক। তাই জনগণই আমার কাছে সকল ক্ষমতার উৎস। জাতীয় ও স্থানীয় দূর্যোগে আমি অতীতেও জনগণের পাশে ছিলাম, বর্তমানেও আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকবো ইনশাআল্লাহ।

দেশে করোনা পরিস্থিতি যতদিন থাকবে ততদিন তার এসব কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি। দেশের সর্বস্তরের মানুষের কাছে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহবান জানান।


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button