বিশেষ প্রতিবেদন

কক্সবাজারের বন ও পাহাড়ে বসত গড়ছে রোহিঙ্গারা

কক্সবাজারের টেকনাফ এবং উখিয়ার বিস্তীর্ণ পাহাড় ও বনভূমি দখল করে বিপদজনক অবস্থায় বসতি স্থাপন করছে রোহিঙ্গারা। আবার অনেকে বৃষ্টির মধ্যে প্রধান সড়কের ওপর অবস্থান নিয়েছে। এদিকে, আজ সকাল থেকে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তবর্তী বেশ কয়েকটি পয়েন্টে আবারো আগুন দিয়েছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। পাশাপাশি তাদের হেলিকপ্টার সীমান্ত ঘেঁষে টহল দিয়েছে।

কক্সবাজার থেকে উখিয়া হয়ে টেকনাফ যাওয়ার পথে দুচোখ যেদিকে যায় সবদিকে এখন রোহিঙ্গাদের অবস্থান। রাস্তার পাশে যেমন তারা রয়েছেন তেমন বন জঙ্গলেও অবস্থান নিয়েছেন রোহিঙ্গারা। পাশাপাশি রাস্তার দুপাশে বনবিভাগের পাহাড় টিলাগুলোতে রোহিঙ্গারা নতুন করে বসতি স্থাপন শুরু করেছে।

ইতিমধ্যে ১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অবস্থান নিলেও সরকারি বেসরকারি কিংবা আন্তর্জাতিক ভাবে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। কক্সবাজার থেকে টেকনাফ পর্যন্ত প্রায় সব এখন রোহিঙ্গাদের দখলে।

এদিকে মঙ্গলবার সকাল থেকে বাংলাদেশ মিয়ানমার সীমান্তবর্তী বেশ কয়েকটি পয়েন্টে আগুন দিয়েছে মিয়ানমার বাহিনী। এছাড়া সীমান্তের বালুখালি পয়েন্টে বিস্ফোরণে আহত হয়েছেন দুই রোহিঙ্গা। মিয়ানমার বাহিনীর হেলিকপ্টার আজও তাদের সীমান্ত ঘেঁষে টহল দিয়েছে।

রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির খুঁজতে এখন আর বেশি দূর যেতে হয় না। কক্সবাজারের টেকনাফ ও উখিয়া এখন অলিখিত ভাবে রোহিঙ্গা শিবিরে পরিণত হয়েছে।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.