সন্ধ্যা ৭:৪৩ বুধবার ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

ব্রেকিং নিউজ:

যশোরের বাগআঁচড়া ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের মতবিনিময় | কাঠালিয়ায় মাদকদ্রব্য উদ্ধারে সহায়তা করায় গ্রাম পুলিশকে পুরুস্কৃত করলেন ওসি | পলাশবাড়ীতে ৬৫ বোতল ফেন্সিডিল সহ এক মহিলা আটক | বীরগঞ্জে সাপের কামড়ে কিশোরের মৃত্যু | মির্জাপুরে বজ্রপাতে কৃষকের মৃত্যু | বীরগঞ্জে ছিনতাইকারী ডলার চক্রের প্রতারক ওসি পরিচয়দানকারী গ্রেফতার | পরিচ্ছন্নকর্মীর জন্য গাবতলী সিটি পল্লীতে আবাসনের ব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে: মেয়র আতিকুল | বাজারে এলো ৫ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারিযুক্ত ‘অপো এ৯ ২০২০’ | ক্যাশ রিসাইক্লিং মেশিন উদ্বোধন করলো ইসলামী ব্যাংক | প্রিমিয়ার ব্যাংক এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর |

বুড়িগঙ্গা নদীর দু’পাড়ের উচ্ছেদ কার্যক্রম সরেজমিনে পরিদর্শন বাপা’র প্রতিনিধি দলের

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : মার্চ ৯, ২০১৯ , ৯:০৮ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : জাতীয়
পোস্টটি শেয়ার করুন

আজ ৯ মার্চ ২০১৯ শনিবার, সকাল ১১.০০ থেকে দুপুর ২.০০ পর্যন্ত; বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা)’র এক প্রতিনিধি দল বুড়িগঙ্গা নদীর পাড় ও সরকার কর্তৃক গৃহীত নদীর দু’পাড়ের উচ্ছেদ কার্যক্রম সরেজমিনে পরিদর্শন করেন।

পরিদর্শক দল সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল থেকে যাত্রা শুরু করে বসিলা খেয়াঘাট (ব্রীজের নীচে) মোহাম্মদপুর পর্যন্ত সরেজমিনে নদীর বর্তমান অবস্থা ও সরকারি কার্যক্রম পরিদর্শন করেন এবং পরিদর্শন শেষে উপস্থিত গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে কথা বলেন।

বাপা প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন বাপা’র সহ-সভাপতি, বিশিষ্ট লেখক, বুদ্ধিজীবী সৈয়দ আবুল মকসুদ; প্রতিনিধি দলে ছিলেন বাপা’র সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. আব্দুল মতিন; সাবেক সাধারণ সম্পাদক, জনাব মহিদুল হক খান; পুরাতন ঢাকার বাসিন্দা ও বাপা’র জাতীয় কমিটির সদস্য জাভেদ জাহান ও ইমরান হোসেন; লালন গবেষক ও বাপা’র সদস্য সরদার হীরক রাজা; বাপা’র সদস্য ইকবাল হোসেন খালিদ ও গ্রীণ ভয়েসের ঢাকা মহানগর-এর সমন্বয়ক আব্দুস সাত্তার প্রমূখ।

উপস্থিত সংবাদকর্মীদের উদ্দেশ্যে সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, নদীকে দখল ও দূষণ মুক্ত করতে সরকার অবৈধ্য স্থাপনা উচ্ছেদের যে অভিযান পরিচালনা করছেন তাকে আমরা অভিনন্দন জানাই। তিনি বলেন সরেজমিনে পরিদর্শনে আমাদের কাছে মনে হয়েছে অবৈধ স্থাপনা ভাঙ্গার ক্ষেত্রে কোন কোন যায়গায় দখলদারদের সাথে আপোষ করা হয়েছে। কিন্তু আমাদের দাবী যথাযথ পন্থায় সঠিক আইন মেনে ছোট-বড় না দেখে নদীর যায়গা দ্রুত নদীকে ফিরিয়ে দেওয়া হোক।

ডা. মো. আব্দুল মতিন বলেন, সরকারী টাস্কফোর্স গণমাধ্যমে বলেছেন যে তারা ২০০৯ সনের নদী রক্ষা বিষয়ক হাইকোর্টের রায় মেনে কাজ করছেন। কিন্তু আজ বাপার সরেজমিন পরিদশর্নে সদর ঘাট থেকে বসিলা পর্যন্ত দেখা যায় – অধিকাংশ স্থানেই উচ্চ আদালতের রায় হুবহু প্রতিপালিত হয়নি, বরং তারা ভুল ভাবে স্থাপিত নদীর সীমানা খুঁটিকে ভিত্তি করে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছেন; ফলে রায়ে নির্দেশিত ‘ব্যতিক্রমহীন’ ভাবে দখলদার উচ্ছেদ হচ্ছেনা। অধিকাংশ স্থানে নদী তট (ফোর শোর) রক্ষা করা হয়েছে, ১৫০ ফুট প্রস্থ ‘নদীপাড়’ রক্ষা করা হয়নি। সবচেয়ে দুঃখজনক বিষয় হচ্ছে আদি বুড়িগঙ্গার উপরে অবস্থিত অসংখ্য বেআইনী দখলদারদের কিছুই করা হয়নি। আমরা বুড়িগঙ্গা নদীর সঠিক পূনরুদ্ধার নিশ্চিতকরণে হাইকোর্টের রায়ের যথাযথ, পূর্ণাঙ্গ ও নির্মোহ বাস্তবায়ন দাবী করছি।

এছাড়াও প্রতিনিধিদলে বাপা’র সহযোগী সংগঠনের অন্যান্য নেতৃবৃন্দগণ উপস্থিত ছিলেন ।

Comments

comments