আন্তর্জাতিক

ভারতে ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ আক্রান্ত, তারপরও খুলছে ট্রেন


ভারতে সপ্তাহের শুরুতেই আবারও বড় ধাক্কা দিয়েছে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস। যা এখন পর্যন্ত একদিনে সর্বাধিক আক্রান্তের সংখ্যায় রূপ নিয়েছে।

দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নতুন শিকার হয়েছেন ৪ হাজার ২শ জন। এর আগে একদিনে একসঙ্গে এতজন করোনার কবলে পড়েননি। যাতে মোট আক্রান্ত বেড়ে ৬৭ হাজার ১শ জনে দাঁড়িয়েছে।

নাজেহাল ভারতে গত একদিনে ভাইরাসটির থাবায় প্রাণ গেছে আরও ৯৭ জনের। আর এতে করে মৃতের সংখ্যা ২ হাজার ২০৬ জনে ঠেকেছে। তবে, বাড়ছে বেঁচে ফেরার সংখ্যা। যদিও সংক্রমিতের তুলনায় কিছুটা কম।

স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয় বলছে, রোববার সুস্থ হয়ে ওঠার হার ছিল ২৬.৫৯ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় তা বেড়ে হয়েছে ৩১.১৪ শতাংশ। ইতিমধ্যেই করোনাকে হারিয়ে সারা দেশে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২০ হাজার ৯১৭ জন।

করোনার প্রকোপ কমাতেই জারি রয়েছে লকডাউন। এরই মধ্যে সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, আগামী মঙ্গলবার থেকেই দেশে ধীরে ধীরে নিয়ন্ত্রিত মাত্রায় যাত্রীবাহী ট্রেন পরিষেবা চালু করার। এ জন্য ট্রেনের টিকিটের অনলাইন বুকিং আজ থেকেই শুরু হয়েছে। দেশজুড়ে লকডাউন জারি থাকা সত্ত্বেও মূল ছন্দে ফেরার চেষ্টাতেই এই সিদ্ধান্ত বলে জানা গেছে।

এর আগে করোনা দেশে দ্রুতহারে ছড়ানো শুরু করার আঁচ পেয়েই গত ২৫ মার্চ থেকে গোটা দেশে লকডাউন জারি করা হয়। ওই পরিস্থিতি শুরু হওয়ার পর থেকেই বন্ধ হয়ে যায় রেলের যাত্রী পরিষেবা। ভারতীয় রেল মন্ত্রণালয়ের এবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, ১৫টি বিশেষ ট্রেন (আপ-ডাউন মিলিয়ে মোট ৩০টি সফর) দিল্লি থেকে ছেড়ে আসাম, পশ্চিমবঙ্গ, বিহার, ছত্তিশগড়, গুজরাট, জম্মু, ঝাড়খণ্ড, কর্নাটক, কেরল, মহারাষ্ট্র, ওড়িশা, তামিলনাড়ু, তেলেঙ্গানা এবং ত্রিপুরার উদ্দেশ্যে রওনা হবে।

তবে সোমবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে এই লকডাউন পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনায় বসবেন। ২৫ মার্চ দেশে লকডাউন জারি হওয়ার পর থেকে এ নিয়ে এটি পঞ্চম বৈঠক হতে চলেছে। এই মহামারির ফলে ভয়ঙ্কর মন্দার মধ্যে চলে গেছে দেশের সার্বিক অর্থনীতি। সেই জায়গা থেকে ঘুরে দাঁড়াতে নানা বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে আলোচনা করতে চান দেশটির প্রধানমন্ত্রী।


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button