সকাল ১১:০৫ বুধবার ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

সাবমেরিনটি উদ্ধার করতে `সক্ষম নয়` আর্জেন্টিনা

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : নভেম্বর ১৮, ২০১৮ , ৯:৩৮ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : আন্তর্জাতিক
পোস্টটি শেয়ার করুন

আর্জেন্টিনার প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেছেন আটলান্টিকের তলদেশে সন্ধান মেলা সাবমেরিনটি উদ্ধারের `ক্ষমতা তাদের নেই`। ২০১৭ সালের নভেম্বরের ১৫ তারিখ ৪৪ জন ক্রু নিয়ে নিখোঁজ হয়েছিলো এআরএ সান হুয়ান নামের সাবমেরিনটি। ঠিক এক বছর একদিন পর ১৬ই নভেম্বর সেটির সন্ধান মিলেছে আটলান্টিক সমুদ্রের ২,৯৫০ ফিট নিচে।

দেশটির নৌবাহিনীর কমান্ডার গেব্রিয়েল আত্তিস নিশ্চিত করেছেন, সাবমেরিনটি পুরোপুরি ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়েছে। এর কাঠামো পুরোপুরি ভাঙাচোরা অবস্থায় পাওয়া গেছে। চারিদিকে ছড়ানো ছিটানো অবস্থায় পাওয়া গেছে এর ধ্বংসাবশেষ। সেগুলো ২২৯ ফিট পর্যন্ত দূরে ছড়িয়ে রয়েছে।

কী হয়েছিলো সাবমেরিনটির?
আটলান্টিক সমুদ্রের ২৯৫০ ফিট নিচে সন্ধান মিলেছে সাবমেরিনটি। এআরএ সান হুয়ান দক্ষিণ আমেরিকার একদম দক্ষিণাংশে একটি নিয়মিত টহল অভিযানে ছিল। পথে সেটির বৈদ্যুতিক ব্যবস্থায় গোলযোগ দেখা দেয়। বিষয়টিকে তখন যানটির ব্যাটারিতে `শর্ট সার্কিট` হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছিলো সাবমেরিন থেকে। সেসময় মিশন বাদ দিয়ে তখনই তাদের ফিরে আসতে বলা হয়েছিলো। নৌবাহিনীর একজন মুখপাত্র গত বছর বলছিলেন, সাবমেরিনটির ব্যাটারিতে পানি ঢুকেছিল; যার কারণে শর্ট সার্কিট হয়েছে।

গত বছর নভেম্বরের ১৫ তারিখ স্থানীয় সময় সাড়ে সাতটায় সাবমেরিন থেকে জানানো হয় যে, সকল ক্রু ভালো আছেন। এটাই ছিল সাবমেরিনটির সাথে সর্বশেষ যোগাযোগ। পারমাণবিক বিস্ফোরণের উপর নজরদারি করে এমন একটি সংগঠন এর আট দিন পর জানিয়েছিল যে তারা সাবমেরিনটির সর্বশেষ অবস্থানের ৬০ কিলোমিটার উত্তরে এক ধরনের বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পেয়েছে।

কী বলছে আর্জেন্টিনার সরকার ও স্বজনেরা?
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আর্জেন্টিনার নৌবাহিনীর একজন কর্মকর্তা বলেছেন, সেটি উদ্ধারের `ক্ষমতা নেই` আর্জেন্টিনার সরকারের।
তিনি বলছেন, “সাবমেরিনটি সমুদ্রপৃষ্ঠে তোলা অসম্ভব নয় তবে তা খুবই জটিল ব্যাপার। আর তার মানে হল তা খুবই ব্যয়বহুল।”

ঠিক কী কারণে সাবমেরিনটি এভাবে ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়েছে সেটি পরিষ্কার নয়। কিন্তু সেটি উদ্ধার করার আকুতি জানাচ্ছেন স্বজনেরা। সাবমেরিনটি নিখোঁজ হওয়ার ঠিক এক বছরে তারা ক্রুদের স্মরণে বিশেষ অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার পরদিনই সাবমেরিনটি খুঁজে পাওয়া যেন তাদের জন্য বাড়তি কিছু বয়ে এনেছে।

সাবমেরিনটির একজন ক্রুর বাবা হোর্হে ভিয়ারিয়াল বলেছেন, “আমরা ওদের খুঁজে পেয়েছি। আমরা এখন সত্যের খোঁজ করবো। আমাদের জন্য একটি নতুন অধ্যায়ের শুরু।” স্বজনেরা যেকোনো মূল্যেই হোক এটি উদ্ধার করার দাবি জানাচ্ছেন। সূত্র-বিবিসি

Comments

comments