জাতীয়

আগামীকাল শাহবাগে ত্রাণ তৎপরতা জোরদারের দাবিতে মানববন্ধন

বানের পানিতে ভাসছে সারা দেশ। এরইমধ্যে দেশের প্রায় পঁচিশটি জেলা সম্পূর্ণ বা আংশিকভাবে বন্যাকবলিত হয়েছে। প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত অর্ধশতাধিক মানুষ। আশঙ্কা করা হচ্ছে এবারের বন্যা হতে পারে বিগত ১০০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ। অর্থাৎ বন্যার যে অবস্থা এখন দেখছি, তা যে আরো মারাত্মক ও বিধ্বংসী রূপ নেবে, সন্দেহ নেই। মানুষের থাকার জায়গা নেই, পেটে খাবার নেই। এমনকি অনেকে এখনো আটকে আছেন পানিবন্দি অবস্থায়। এদের জন্য নিরাপদ আশ্রয় ও জরুরি খাবার ও স্বাস্থ্যসেবার ব্যবস্থা না করলে প্রাণহানি সকল সংখ্যা ছাড়িয়ে যাবে।

সরকারের কর্তাব্যক্তিরা যথারীতি দায়িত্বে অবহেলার চূড়ান্ত নিদর্শন দেখিয়ে চলেছেন, পত্রিকায় প্রকাশিত খবরে দেখা গেছে বিভিন্ন এলাকায় জনপ্রতিনিধিদের খোঁজ পাচ্ছে না সাধারণ মানুষ।

এই বন্যা কোন আকস্মিক দুর্যোগ নয়, বিশেষজ্ঞরা দীর্ঘদিন ধরেই এ বিষয়ে সতর্ক করে এসেছেন। কিন্তু তারপরও সরকারের কোন মহল থেকেই কর্ণপাত করা হয়নি, নেয়া হয়নি প্রতিরোধের কোন ব্যবস্থা।

বস্তুত সরকারের উদাসীনতা ও দায়িত্বে অবহেলার কারণে বানভাসি মানুষের দুর্ভোগ চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছেছে।

অবিলম্বে ত্রাণ তৎপরতা এবং উদ্ধার অভিযান জোরদারের দাবিতে আগামীকাল ১৭ আগস্ট বৃহস্পতিবার, বিকাল ৪টা শাহবাগে মানবন্ধন করবে নাগরিক সমাজ। মানুষ বাঁচানোর এই মানববন্ধনে যোগ দেয়ার জন্য সর্বস্তরের জনতার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার।

এরই মধ্যে ইমরান এইচ সরকারের আহ্বানে দুর্গত এলাকায় ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনার নাগরিক উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। শাহবাগের জরুরি ত্রাণসেলে বন্যার্ত মানুষের জন্য ত্রাণসামগ্রী সংগ্রহ করা হচ্ছে।

চাল, ডাল, চিঁড়া, মুড়ি, গুড়, লবণ, খাবার স্যালাইন ইত্যাদি জরুরি প্রাণ বাঁচানোর দ্রব্যাদি ও নগদ অর্থ সংগ্রহ করা হচ্ছে ত্রাণ সেলে। একটি ফেসবুক ইভেন্টে ত্রাণ সংগ্রহ কার্যক্রমের সার্বক্ষণিক আপডেট দেয়া হচ্ছে।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.