দেশজুড়ে

গোবিন্দগঞ্জে সড়ক অবরোধ ছিনতাইকৃত মটরসাইকেল উদ্ধার


ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা : গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জে পথরোধে শারিরীক নির্যাতন করে মটর সাইকেল ও টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় গোবিন্দগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে। এঘটনা নিয়ে গোবিন্দগঞ্জ-মহিমাগঞ্জ সড়ক অবরোধে মটরসাইকেল উদ্ধার হলেও হয়নি ছিনতাইকৃত ৪ লক্ষ টাকা।এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে,উপজেলার আরজি সাহাপুর তারাগণা গ্রামে গত ২ জুলাই বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৮টার দিকে আব্দুর রাজ্জাক জনি তার ভাটার হিসাবপত্র করে প্রায় ৪ লক্ষ টাকা নিয়ে বাড়ির পথে রওনা দেয়। এসময় ইট ভাটার অদূরে তারাগণা চারমাথা সংলগ্ন আসামীদের বাড়ির সামনে পৌঁছিলে পূর্ব হতে ওঁৎপেতে থাকা সানোয়ার হোসেন, তার পিতা শুকুর আলীসহ অজ্ঞাত কয়েকজন পথরোধ করে। আচমকা তারা মারপিট করে মটরসাইকেল ভাংচুর ও প্যান্টের পকেটে রক্ষিত চার লক্ষ টাকা ছিনিয়ে নেয়। এসময় তারা মটরসাইকেলটিকেও নিয়ে যায়। ছিনতাইয়ের ঘটনায় মারপিটে জীবনের ভয়ে ওমর ফারুক পালিয়ে যায়। একাকি আব্দুর রাজ্জাক জনিও ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে টাকার আশা না করে জীবন বাঁচাতে পালিয়ে নিরাপদ স্থানে চলে যায়। এ ঘটনায় ঐরাতেই ভুক্তভোগী আব্দুর রাজ্জাক জনি বাদি হয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানায় একটি এজাহার দায়ের করে। ঘটনাটি নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করতে থাকে।

৩ জুলাই শুক্রবার স্থানীয় লোকজন মহিমাগঞ্জ রোড অবরোধ করে রাখে। সকাল ১০টার দিকে অবরোধ শুরু হয়ে সাড়ে দশটার সময় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ প্রধান,মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রুবেল আমীন শিমুল, গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। এসময় আটককৃত মটরসাইকেলটি সানোয়ারের বাড়ি হতে উদ্ধার করে আব্দুর রাজ্জাক জনির নিকট হস্তান্তর করা হয়। পরিবেশ শান্ত রেখে পরবর্তীতে বৈঠকের মাধ্যমে ঘটনার সমাধান করা হবে বলে উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ প্রধান তাদেরকে আশ্বস্ত করে। এজাহার তদন্তে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসআই সজিব ঘটনাস্থলে পরিদশর্ণ করেন এবং ঘটনা তদন্তধীন রয়েছে বলে সাংবাদিকদের জানান।স্থানীয় ইউপিসদস্য আলাউদ্দিনের সাথে কথা বললে তিনি সাংবাদিকদের জানান,এটা কলকাতা শহর। এখানে কেউ কাউকে মান্য করে না। আমি ঘটনা লোকমুখে শুনেছি,তবে কোন পক্ষই এখনও আমাকে জানায়নি। শুধু থানার এসআই কথা বলেছে।


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button