রাজশাহী

অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগে জরিমানা; সব পরিবহন বন্ধ

ষ্টাফ রিপোটার,পাবনাঃ সোমবার (২৭ আগস্ট) সাড়ে তিনটার দিকে শুরু হওয়া এই অবরোধে ভোগান্তিতে পড়েছেন ঈশ্বরদী-ঢাকা, ঈশ্বরদী-পাবনা ও ঈশ্বরদী-বাঘা-রাজশাহী হয়ে চলাচলরত বিভিন্ন রুটের যাত্রীরা। এদিকে দুপুর চারটার দিকে রেলগেটের সামনে অবস্থান নেওয়া শতাধিক শ্রমিককে বিভিন্ন ধরনের স্লোগানও দিতে দেখা গেছে। ট্রাফিক পুলিশ ‘নানা অজুহাতে’ নিয়মিতই তাদের হয়রানি করেন বলে অভিযোগ করেন আশফাকুল নামে এক শ্রমিক। তিনি বলেন, “আমরা পেটের দায়ে কাজ করি। প্রতিদিনই নির্দিষ্ট হারে টাকা মালিকের হাতে দিতে হয়, দিতে না পারলে উল্টো আমাদের মজুরি কেটে রাখা হয়। এ অবস্থায় রাস্তায় গাড়ি নামালেই যদি জরিমানা গুণতে হয় তাহলে তো এই কাজ করে ভাত জোটানোসম্ভব না।

 

ঈশ্বরদী খায়রুজ্জামান বাবু বাস টার্মিনালের  সামনে গাড়ির জন্য অপেক্ষারত কয়েকজন যাত্রী জানান, বাঘা থেকে এসে অনেকেই সেখানে আটকে গেছেন। শ্রমিকরা যাত্রীদের নামিয়ে বাস ঘুরিয়ে দিচ্ছে। প্রায় একই ভাষ্য মিলল পাবনা এক্সপ্রেস নামে একটি বাসে করে আসা যাত্রীদের কাছেও। রাজিউন ইসলাম নামে একজন ব্যবসায়ী জানান, তিনি তার দোকানের মালপত্র নিয়ে পাবনা যাচ্ছিলেন। রেলগেটে আসার পর শ্রমিকরা তাদের জোর করে নামিয়ে দিয়েছে। বাস বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়া অনেক যাত্রীকেই পায়ে হেঁটে যেতে দেখা গেছে।বিকেল ৫টার দিকে ঈশ্বরদী নিউজ টুয়েন্টিফোরের প্রতিবেদক রবিন ফাহাদ জানান,  রেলগেট  গোল চত্বর এলাকায় স্বল্প পরিসরে দুয়েকটি মোটরসাইকেল চলাচল করতে দেখা গেছে।

 

বাসের অভাবে আশেপাশে অন্তত কয়েকশ মানুষকে অপেক্ষায় থাকতে দেখা যায়।অবরোধের কারণে রেলগেট  গোল চত্বরের সামনে রাস্তার পাশে ঈশ্বরদী এক্সপ্রেস, পাবনা এক্সপ্রেস ও সনি পরিবহনের বাস থামিয়ে রাখা হয়েছে।ঢাকা যাওয়ার বাস না পেয়ে দুই মেয়ে আর এক ছেলেকে নিয়ে ভোগান্তিতে পড়েছেন সখিনা বেগম।তিনি বলেন, “এক ঘণ্টা বসে আছি, গাড়ি পাচ্ছি না। আদৌ পাব কীনা বুঝতে পারছি না।বাস বন্ধ থাকার কারণ জানতে চাওয়া হলে সনি পরিবহনের টিকেট বিক্রেতা নাম প্রকাশ না করে বলেন, মালিকের নির্দেশে বাস বন্ধ আছে। ছাড়তে না বলা পর্যন্ত বাস চলবে না।বিকেলের পর থেকে ঈশ্বরদী থেকে ঢাকাসহ পাবনা জেলাতে কোনো বাস চলেনি বলেও জানান তিনি।

 

যোগাযোগ করা হলে ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিম উদ্দিন বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) যোবায়ের হোসেন মোবাইল কোর্ট বসিয়েছিল। অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগে জরিমানা করলে শ্রমিকরা ক্ষুব্ধ হয়ে সড়ক অবরোধ করে। পাবনা জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়ন ঈশ্বরদী শাখার সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান বলেন, প্রতিবার বাস ভাড়া বাড়ানোর পর কিছুটা নিয়ম-অনিয়ম হয়। এবার ঈদে উপলক্ষ্যে বাস ভাড়া বৃদ্ধির পর ম্যাজিস্ট্রেট শ্রমিককে জরিমানা করলেন ।এরকম একটি ঘটনার পর চালক ও শ্রমিকরা বাস চালানো বন্ধ করে দেয়।

 

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.