দেশজুড়ে

মির্জাপুরে পুলিশ পরিচয়ে লাখ টাকা ছিনতাই

  • 429
    Shares

রাব্বি ইসলাম, মির্জাপুরঃ টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে পুলিশ পরিচয় দিয়ে ১ লাখ টাকা ছিনতাই করেছে এক চক্র। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার পৌরসদরের ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের নতুন বাইপাস এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

ছিনতাইয়ের শিকার ভাদগ্রাম ইউনিয়নের ভাদগ্রাম নয়াপাড়া গ্রামের গৃহস্থ মজিবুর রহমান জানান, গরু ক্রয় করতে বেলা সাড়ে ১০টার দিকে বাড়ি থেকে ‘অটো রিকসাযোগে’ মির্জাপুরের দেওহাটা গরুর হাটের উদ্দেশ্যে রওনা হয়, তিন গৃহস্থ মজিবুর রহমান (৪৫), একই ইউনিয়নের ভাদগ্রামের আমিনুর রহমান (৫৫) ও আন্দিপাড়া গ্রামের বাচ্চু মিয়া (৬০)। বেলা ১১টার দিকে মির্জাপুর নতুন বাইপাস পৌঁছানোর পর তাদের রিকসার গতিরোধ করে তিনজন অপরিচিত লোক, রাস্তায় সমস্যা গাড়ি আর যাবে না, লকডাউন চলছে আপনারা জানেন না? হেটে যেতে হবে কিছুদুর তারপর আপনারা গাড়িতে উঠে গন্তব্যস্থলে যেতে পারবেন। তাদের কথামতো তিন গৃহস্থ অটোরিকসা থেকে নেমে হাটতে লাগে, আনুমানিক ২০০ গজ সামনে (পূর্ব দিকে) যাওয়ার পর আরও দুজন অপরিচিত লোক তাদের পুলিশ পরিচয় দিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে, কোথায় যাবে, কেনো যাবে, করোনার মধ্যে হাটে যেতে সমস্যা আছে ইত্যাদি বলে তারা টাকা নিয়ে আসছে কিনা জানতে চেয়ে বলে হাটে অনেক জাল টাকা ধরা পরছে আমরা পুলিশ এখান থেকে সবার টাকা চেক করে দিচ্ছি। আপনাদের টাকা দেন আমাদের বড় স্যার ওইপাশে বসে আছে, আপনাদের টাকাও চেক করা হবে।

পরে পুলিশ ভেবে মজিবুর রহমানের কাছে থাকা ৬০ হাজার ও আমিনুর রহমানের কাছে থাকা ৪০ হাজার টাকা তাদের হাতে তুলে দেন চেক করবে মর্মে। টাকা নেয়ার পর তিন ছিনতাইকারীর মধ্যে একজন টাকা নিয়ে আমিনুর রহমানকে সাথে নিয়ে যায় টাকা চেক করার কথা বলে, কিন্তু ৫০ গজ পূর্ব দিকে যাওয়ার পরই সামনে থাকা প্রাইভেটকারে উঠে টাকা নিয়ে যাওয়া এক ছিনতাইকারী টাটা দিয়ে চলে যায়। ধর ধর বলতে শুরু করতেই মজিবুর ও বাচ্চু দুজনেই তাদের ধরতে দৌড় দেয় এবং প্রাইভেটকার ধরতে না পেরে সাথে থাকা আরও দুজনকে এসেও পায়নি তারা। হায়হুতাস করতে করতে ডাক-চিৎকারেও কেউ এগিয়েও আসেনি বলে আক্ষেপ করেন মজিবুর রহমান। পরে বাইপাস গিয়ে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশকে ঘটনাটি বললেও কোনো ফায়দা হয়নি। উপায় না পেয়ে নিঃস্ব হয়ে তারা নিজেদের বাড়ি ফিরে যান। জানতে চাইলে বলেন, কি করবো বুঝতে না পেরে ঘটনার পর সরাসরি বাড়িতে ফিরে আসছি। থানায় অভিযোগ করিনি।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সায়েদুর রহমানের সাথে যোগাযোগে তিনি বলেন, এ ধরণের কোনো সংবাদ পাইনি। কোনো অভিযোগও করেনি কেউ। তবুও বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে। উল্লেখ করেন, মহাসড়কে টহল জোরদার করা হয়েছে।


  • 429
    Shares

Related Articles