দেশজুড়ে

খুলনা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি  হুমায়ুন কবীর বালু’র ১৬তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত


খুলনা প্রতিনিধি : ২৭ জুন শনিবার খুলনা প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও একুশে পদকপ্রাপ্ত নির্ভীক সাংবাদিক হুমায়ুন কবির বালুর ১৬ তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়।

মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে খুলনা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে সাংবাদিক স্মৃতি স্তম্ভে পুষ্পমাল্য দান, দোয়া মাহফিল ও স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়।সকালে ক্লাবের শহীদ সাংবাদিক স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে সাংবাদিক হুমায়ুন কবীর বালু’র আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন খুলনা প্রেসক্লাব, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়ন ও খুলনা টিভি রির্পোটার্স ইউনিটির নেতৃবৃন্দ।

পরে স্থাস্থ্যবিধি মেনে ক্লাবের হুমায়ুন কবীর বালু মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত স্মরণসভায় সভাপতিত্ব করেন খুলনা প্রেসক্লাবের সভাপতি এস এম নজরুল ইসলাম। সভা পরিচালনা করেন ক্লাবের যুগ্ম-সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন।স্মরণসভার শুরুতে সাংবাদিক হুমায়ুন কবীর বালু’র আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ।

স্মরণ সভায় বক্তৃতা করেন খুলনা প্রেসক্লাবের নির্বাহী সদস্য ও সাবেক সভাপতি মকবুল হোসেন মিন্টু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম জাহিদ হোসেন ও মো. সাহেব আলী, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ও ক্লাবের নির্বাহী সদস্য মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. মোজাম্মেল হক হাওলাদার, ক্লাব সদস্য আব্দুল মালেক, এস এম নূর হাসান জনি ও ইউজার সদস্য প্রবীর কুমার বিশ্বাস।

এছাড়া স্মরণসভায় উপস্থিত ছিলেন খুলনা প্রেসক্লাবের সদস্য দেবব্রত রায়, ওয়াহেদ-উজ-জামান বুলু, বাপ্পী খান, সুনীল কুমার দাস, ক্লাবের ইউজার সদস্য রীতা রানী দাস, শশাংক শেখর স্বর্ণকার, শরিফুল ইসলাম বনিসহ অন্যন্য সাংবাদিকবৃন্দ।

সভায় দীর্ঘ ১৬বছরেও শহীদ সাংবাদিক হুমায়ুন কবির বালু হত্যাকান্ডের সুষ্ঠ বিচার না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে ঘাতকদের সনাক্ত করে কঠোর শাস্তির আওতায় আনতে পুলিশ ও প্রশাসনের প্রতি দাবী জানানো হয়।

উল্লেখ্য, ২০০৪ সালের ২৭জুন ধৈনিক জন্মভুমি পত্রিকার সম্পাদক প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি হুমায়ুন কবির বালুকে তার বাসার সামনেই বোমা মেরে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা।


Related Articles