দেশজুড়ে

মাদক ব্যাবসায়ীসহ ২জনকে আটক করে পুলিশে দেওয়ায় ছাড়া পেয়ে যুবকের উপর হামলা


পিরোজপুর প্রতিনিধিঃ পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলায় কয়েকজন যুবক মাদক ব্যাবসায়ী ও তার সাথে থাকা একজন মাদকাসক্তকে মাদকসহ আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। পরে পুলিশের কাছ থেকে ছাড়া পেয়ে জাকারিয়া নামে এক যুবকের উপর অতর্কিত হামলা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

পারিবারিক সূত্রে জানাযায়, গত বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার দক্ষিণ ভবানীপুর আকন বাড়ির সামনে মোঃ আঃ মালেক হাওলাদার এর ছেলে মোঃ জাকারিয়া হাওলাদার (২৩) এর উপর অতর্কিত হামলা চালায় এবং তার সাথে থাকা ১৩ হাজার টাকা দামের ফোনটিও ভেঙে ফেলে অভিযুক্তরা।

মাদক ব্যাবসায়ী দক্ষিণ বালিপাড়ার খালেক বেপারীর ছেলে রবিউল বেপারী (২১), ও একই এলাকার মজিদ চৌকিদার এর ছেলে মানিক চৌকিদার (২০), তাদের সাথে থাকা উত্তর ভবানীপুর এলাকার ফিরোজ সিকদারের ছেলে মাদকাসক্ত নাইম সিকদার (১৮)কে আটক করার সময় মাদক ব্যাবসায়ী রবিউল বেপারী পালিয়ে যায়।

হামলাকারীরা উত্তর ভবানীপুর এলাকার ফিরোজ সিকদারের ছেলে মাদকাসক্ত নাইম সিকদার (১৮), মোস্তফা সিকদার এর ছেলে জোবায়ের সিকদার (২০), বাদসা শেখ এর ছেলে ইমাম শেখ (১৮), মাসুম আকনের ছেলে রনি আকন (১৯), ও পাশের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার চরহোগলাবুনিয়া গ্রামের আনোয়ার শেখ এর ছেলে জাকারিয়া শেখ (১৮)সহ ১২/১৫ জন হামলা করে।

হামলার শিকার জাকারিয়া হাওলাদার বলেন, আমার পাশের এলাকা বটতলা আমার বাড়ির পাশাপাশি হওয়ায় ঐ এলাকায় আমার যাতায়াত বেশি। ঐ এলাকার মেম্বার রশিদ চৌকিদার আমিও আমার ফ্রেন্ডদেরকে বলে এলাকায় কিছু মাদক ব্যাবসায়ী আছে আমি তাদেরকে ধরতে পারিনা তোমরা আমাকে সহোযোগিতা করলে আমি ওদেরকে পুলিশে ধরিয়ে দেব। আমরা কয়েকজন বন্ধু মিলে কয়েকদিন পরে ওদেরকে গাজাসহ আটক করে মেম্বার কে খবর দিলে মেম্বার পুলিশ কে খবর দিয়ে দুই জনকে পুলিশে ধরিয়ে দেয়া হয়।

জাকারিয়া আরও বলেন, পরে একদিন পর মাদক ব্যাবসায়ীরা ছাড়া পেয়ে ১২/১৫ জন লোকজন নিয়ে আমি রাস্তা থেকে হেঁটে যাওয়ার সময় পিছন থেকে হামলা করে এবং আমার সাথে থাকা ১৩ হাজার টাকা দামের মোবাইল টাও ভেঙে গুড়িয়ে দেয়।

হামলার শিকার জাকারিয়া হাওলাদারের মা বলেন, আমার ছেলের উপর যারা অতর্কিত হামলা করেছে প্রশাসনের কাছে তার সঠিক বিচার চাই।

এ বিষয়ে জানতে বালিপাড়া ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ রশিদ চৌকিদার কে একাধিক বার ফোন করলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

আহত জাকারিয়া হাওলাদার বর্তমানে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে। পিরোজপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল ইনচার্জ বলেন, রোগীর শারীরিক অবস্থা মোটামুটি ভালো আছে।

এবিষয়ে ইন্দুরকানী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ হুমায়ুন কবির বলেন, অভিযুক্তদের কে মাদক দিয়ে ফাঁসানো হয়েছে, ওদের গার্ডিনদের মুসলেখা নিয়ে আমরা ছেড়ে দিয়েছি। তবে এ ঘটনা নিয়ে যার উপর হামলা করেছে এটার বিচার হবে।


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button