দেশজুড়ে

পুলিশের হস্তক্ষেপে ঝিকরগাছার পানিবন্ধি পরিবারটি অবশেষে মুক্ত

  • 37
    Shares

নাজিম উদ্দীন জনি, শার্শা (বেনাপোল) প্রতিনিধিঃ পুর্ব শত্রুতার জেরে ঝিকরগাছার পল্লীতে পানি বন্ধি একটি পরিবার ’তরঙ্গ নিউজে “সংবাদ প্রকাশের পর নজরে এসেছে প্রশাসনের।

শত্রুতা করে বৃষ্টির পানি বের হওয়ার পথ বন্ধ করায় জলাবদ্ধতায় আটকে থাকা পরিবারটি অবশেষে বাঁকড়া তদন্ত কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রিপন বালার হস্তক্ষেপে পানি নিস্কাসনের ব্যবস্হা হয়েছে।ফলে উপজেলার শংকরপুর ইউনিয়নের কুমরী গ্রামের পূর্ব পাড়ায় পানিবন্ধি ইয়াছিন আলীর পরিবারটি সাত দিন পর অবশেষে মুক্ত হলো।

আরও পড়ুন: প্রতিবেশীর শত্রুতায় ঝিকরগাছার পল্লীতে পানিবন্ধি একটি পরিবার

বৃহস্প্রতিবার সকালে প্রথমে নাভারন সার্কেল এসপি নির্দেশে ঝিকরগাছা বাঁকড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রিপন বালার সহযোগিতায় উপ-সহকারী পুলিশ পরিদর্শক (এএসআই) সাইফুল ইসলাম ঘটনাস্থলে গিয়ে ড্রেন কেটে জলাবদ্ধ পানি নিষ্কাসনের ব্যবস্থা করে পরিবারটি মুক্ত করেন।

এর আগে পানিবন্ধি পরিবারের সংবাদটি “তরঙ্গ নিউজে “প্রকাশ হয়। প্রকাশ হওয়ার পর বিষয়টি প্রসাশনের নজরে আসে।

জলাবদ্ধতায় আটকে থাকা ইয়াসিন আলীর স্ত্রী শরিফা খাতুন জানান, বর্ষাকালে তাদের উঠানের পানি দীর্ঘদিন ধরে ইসলাম হোসেনের আম বাগানের ড্রেন দিয়ে নিষ্কাসন হতো। কিন্তু কিছুদিন আগে ইসলাম হোসেন শত্রুতা করে তার আম বাগানের পানি নিষ্কাষনের ড্রেনটি বন্ধ করে দেন। এতে করে পরিবারটি টানা কয়েক দিনের বৃষ্টিতে উঠানে হাটু সমান পানি জমে জলাবদ্ধতায় আটকে পড়ে গত এক সপ্তাহ ধরে পরিবারটি জলাবদ্ধতায় চরম দুর্ভোগে পড়ে।

বাঁকড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এএসআই সাইফুল ইসলাম জানান, গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে কুমরী গ্রামের পূর্ব পাড়ায় ইয়াছিন আলীর পরিবারটি সাত দিন ধরে পানিবন্ধি অবস্থায় আটকে ছিল।পরে নাভারন সার্কেল এসপি জুয়েল ইমরান স্যারের নির্দেশে ও বাঁকড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সহযোগিতায় ঘটনাস্হলে গিয়ে ইসলাম হোসেনের আম বাগানের ড্রেন দিয়ে পানি নিষ্কাষনের ব্যবস্থা করে জলাবদ্ধতার সমস্যা নিরসন করা হয়েছে।


  • 37
    Shares

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button