রাজনীতি

সিরাজউদ্দৌলা দেশপ্রেমিক মানুষের প্রেরনার বাতিঘর : ডাঃ ইরান


পলাশীর বিপর্যয় থেকে আমাদের যথাযথ শিক্ষা গ্রহণ করা উচিত। নয়তো ইতিহাসের সেই নির্মম সত্য বাস্তবে পরিণত হবে মন্তব্য করে বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেছেন, ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিয়ে আজ আমাদের নব্য মীরজাফর, ঘষেটি বেগম, জগৎশেঠ ও রায়দুর্লভদের চিহ্নিত করতে হবে। সিরাজউেদ্দৌলা দেশপ্রেমিক স্বাধীনতাকামীদের প্রেরণার বাতিঘর। তিনি আমাদের স্বাধীন অস্তিত্বের প্রতীক, জাতীয় বীর।

আজ ২৩ জুন (মঙ্গলবার) ঐতিহাসিক পলাশী দিবস তথা বাংলা-বিহার-উড়িষ্যার শেষ স্বাধীন নবাব সিরাজউদ্দৌলার ২৬৩ তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে বেলা ১০ টায় বাংলাদেশ ছাত্র মিশনের ভার্চুয়াল আলোচনায় এক তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য নবাব সিরাজউদ্দৌলাকে জীবন বিসর্জন দিতে হয়েছে। তিনি চাইলে ব্রিটিশ বণিকদের বাণিজ্য সুবিধা কিছুটা বাড়িয়ে বহু যুগ ধরে নবাবী করে যেতে পারতেন। কিন্তু তিনি তা করেননি। দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য তার ভালোবাসা ছিল অগাধ ও অকৃত্রিম। তাই তিনি শত্রুদের চিরতরে নিশ্চিহ্ন করে স্বাধীনতাকে মজবুত করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু মীর জাফরদের বিশ্বাস ঘাতকতার কারণে তিনি তা পারেননি। স্বাধীনতা দেশের সবচেয়ে বড় সম্পদ। একে রক্ষার জন্য আজ দেশের বৃহত্তর ঐক্যের বড় প্রয়োজন।

বাংলাদেশ ছাত্র মিশন সভাপতি সৈয়দ মোঃ মিলনের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন লেবার পার্টির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব লায়ন ফারুক রহমান, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়র ফরিদ উদ্দিন, ভাইস চেয়ারম্যান এস এম ইউসুফ আলী, যুগ্ম মহাসচিব নুরুল ইসলাম সিয়াম। সঞ্চালনা করেন ছাত্রমিশন সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম।


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button