সকাল ১০:৫৮ বুধবার ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

নবীন ভোটারদের কাছে টানতে আওয়ামী লীগের যত উদ্যোগ

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : জুন ২০, ২০১৮ , ১১:১২ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : রাজনীতি
পোস্টটি শেয়ার করুন

তুন ভোটাররাই আগামী নির্বাচনে জয়-পরাজয়ের মূল ফ্যাক্টর। তরুণ ভোটারদের টার্গেট করে নির্বাচনী কৌশল সাজাচ্ছে আওয়ামী লীগ। বিশেষ করে ফার্স্টটাইম ভোটারদের মন জয় করতে চাচ্ছে দলটি। এজন্য বিগত দু’বারের মতো একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও প্রার্থী মনোনয়নে তারুণ্যনির্ভর এবং জনপ্রিয়দের বাছাই করছে ক্ষমতাসীনরা।

 

অতীতেও প্রতিটি নির্বাচনে নতুনরাই জনপ্রতিনিধি নির্বাচনে মূল ভূমিকা পালন করে আসছেন। ফলে আগামী নির্বাচনে নবীন ভোটারদের কাছে টানতে সর্বাত্মক উদ্যোগ নিচ্ছে আওয়ামী লীগ । ইতিমধ্যে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে আগ্রহীরা প্রচার-প্রচারণার পাশাপাশি লবিংয়ে ব্যস্ত। নানা সুযোগ-সুবিধা ও প্রতিশ্রুতি দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে নির্বাচনী ইশতেহার। প্রচার-প্রচারণায় থাকতে পারে পাল্টাপাল্টি প্রতিশ্রুতির প্রতিযোগিতা। প্রায় আড়াই কোটি নতুন-তরুণ ভোটারকে পক্ষে রাখতে কৌশল সাজাচ্ছে আওয়ামী লীগ।

এদিকে বেশ কিছু কর্মপরিকল্পনা নিয়ে দলের নিজস্ব গবেষণা সেল সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) কার্যক্রমও শুরু করেছে। তাদের এ কাজের তদারকি করছেন শেখ রেহানার ছেলে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিকী ববি। আর এ কাজে সহায়তা দিচ্ছেন আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা। সিআরআই তরুণদের পছন্দ-অপছন্দ জেনে নিতে বিভিন্ন গবেষণাও শুরু করেছে। বিশেষ করে সোশ্যাল মিডিয়াবান্ধব নতুন ভোটারদের টার্গেট করা হয়েছে। তাই নতুন ভোটারদের দৃষ্টিআকর্ষণ করে পারে—এমন কিছু বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দিয়ে কাজ করবে সরকার। তাদের কাছে টানতে নির্বাচনি ইশতেহারেও আকর্ষণীয় কিছু ঘোষণা করবে ক্ষমতাসীন দলটি। এ লক্ষ্যে মিডিয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করে দলীয় ইশতেহার তুলে ধরে সব কেন্দ্রীয় নেতাকে ফেসবুক লাইভে আসতেও বলা হয়েছে।

 

জানা গেছে, সম্প্রতি সিআরআই ও আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এইচ টি ইমাম, দলের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে বৈঠক করেছেন রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিকী ববি। বৈঠকে তরুণ-নতুন ভোটারদের আকৃষ্ট করাসহ বেশকিছু পদক্ষেপ নিতে সরকারকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এরআগে নতুন ভোটারদের পছন্দ-অপছন্দ কী, তা জেনে নেওয়ার ওপরও গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। এই বিষয়ে সিআরআইকে কাজ করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

 

দলের পক্ষ থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে নিয়মিত পোস্ট দেয়া হচ্ছে। ‘বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ’ নামের ফেসবুক পেজ থেকে প্রতিদিন দলীয় ও সরকারের বিভিন্ন সংবাদ শেয়ার করা হচ্ছে। পাশাপাশি দলের পক্ষ থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমভিত্তিক বিভিন্ন অ্যাপ তৈরি করা হচ্ছে।‘ভরসা রাখুন নৌকায়’ এ লেখা সম্বলিত একটি অ্যাপের মাধ্যমে দলীয় নেতাকর্মীরা নিজেদের প্রোফাইল পিকচার পরিবর্তন করছেন। পাশাপাশি ‘নৌকায় ভোট দিন’ এ লেখা সম্বলিত একটি অ্যাপও ব্যবহার করতে দেখা গেছে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বিভিন্ন ফেসবুক অ্যাকাউন্টে।

 

আওয়ামী লীগ নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম প্রচারের একটি বড় মাধ্যম। বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মের অধিকাংশই এসব মাধ্যমে সক্রিয়। তাই সঠিক তথ্য জানাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের বিকল্প নেই। পাশাপাশি সরকারবিরোধী অপপ্রচার মোকাবেলায় এটি অন্যতম সহায়ক মাধ্যম।আরও জানা যায়,‘আওয়ামী লীগ পারে, আওয়ামী লীগই পারবে’ এই মূলমন্ত্রই থাকবে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে। টানা দুই মেয়াদে ক্ষমতায় থেকে তরুণদের জন্য আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার কী কী করেছে, সেসবের বিবরণ থাকবে। এবার নির্বাচনী ইশতেহারে তরুণদের জন্য আলাদা চমক রাখবে ক্ষমতাসীন দলটি।

 

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, এসব সার্ভে তরুণ ও নতুন ভোটারদের আগ্রহ কোন বিষয়ে, তাদের মানসিকতা বোঝা, সোশ্যাল মিডিয়ায় কী ধরনের বিষয়ের ওপর তারা সময় কাটায়, ভবিষ্যতে কী ধরনের প্রযুক্তি তারা আশা করে, এগুলো তুলে আানার কাজ করছে সিআরআই।এদিকে, গত মে মাসে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে আয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ঘোষণা দিয়েছেন, আওয়ামী লীগের এবার টার্গেট নতুন ভোটার যারা হবেন, তারা। তাদের ভোট টানতে কাজও করা হচ্ছে বলে জানান এই নেতা। ইত্তেফাক

Comments

comments