ভোর ৫:০২ শনিবার ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

ঈদ আনন্দ বিসর্জন দিলেন ৮০ শতাংশ পুলিশ সদস্য

নিউজ ডেস্ক | তরঙ্গ নিউজ .কম
আপডেট : জুন ১৬, ২০১৮ , ১০:২৯ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : জাতীয়
পোস্টটি শেয়ার করুন

শুরু হয়ে গেছে ঈদ আনন্দ। ঈদের ছুটিতে প্রিয় মানুষকে কাছে পেয়ে আনন্দে মাতোয়ারা সবাই। এমন আনন্দ এখন ঘরে ঘরে হলেও কিছু মানুষের নেই কোনো ফুরসত। মেলে না ছুটি। উৎসব আনন্দে শামিল হতে পারেন না তারা। পেশাগত দায়িত্ব পালনেই তৎপর থাকতে হয়।ঘরমুখো মানুষের যাতায়াতে, রাস্তাঘাটে, ঈদগাহে, ঘরবাড়ি, ব্যাংক-বীমা আর বিনোদন কেন্দ্রে নিরাপত্তা দিতে বরাবরের মতো এবারো ঈদ-উল-ফিতরে ব্যস্ত রয়েছেন পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা। সবার ঈদ আনন্দ নিশ্চিত করতে নিজেদের আনন্দ বিসর্জন দিয়েছেন তারা। ছুটি না পাওয়ায় স্বজনদের সঙ্গে ঈদ করতে পারেননি প্রায় ৮০ শতাংশ পুলিশ সদস্য।

দায়িত্ব পালনে ব্যস্ত থাকা এসব মানুষ বলছেন, পরিবার-পরিজনের জন্য সবারই মন কাঁদে। আমাদেরও কাঁদে। তবে এই ভেবে ভালো লাগে যে, বৃহত্তর মানব গোষ্ঠী ও দেশের জন্য কাজ করতে গিয়ে আনন্দ ত্যাগ করতে পেরেছি।রাজধানীর ফার্মগেটে দায়িত্ব পালনকারী একজন পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, পুলিশের চাকরি তো বোঝেনই। এমনিতেই নির্দিষ্ট সময়ের চেয়ে বেশি কাজ করতে হয়। আর ঈদের সময় আগের মতো ছুটি পাওয়া যায় না। এর পরও ডিউটির চাপ থাকে বেশি। তবুও আক্ষেপ নেই তার।

 

 

পুলিশ সদর দফতরের এআইজি (মিডিয়া এন্ড পিআর) সহেলী ফেরদৌস বলেন, মানুষের কষ্ট লাঘব করে মুখে হাসি ফোটানোর চেয়ে বড় ঈদ আনন্দ আর নেই। মানুষের আনন্দ দেখে আমরা নিজেদের স্বজনহীন ঈদ কাটানোর ব্যথা ভুলে যাই। ঈদের আগের রাত পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানুষ ছুটেছে নাড়ির টানে। প্রিয়জনের সঙ্গে মিলিত হওয়ার আনন্দে সবাই থেকেছে বিভোর। কিন্তু ব্যতিক্রম রয়েছে পুলিশে। দিনরাত সড়ক, রেল, নৌপথ, বিমানবন্দরে দাঁড়িয়ে মানুষের নিরাপদ চলাচল নিশ্চিত করেছেন তারা।

 

 

তিনি বলেন, ঈদের আগের দিন কনস্টেবল থেকে শুরু করে পুলিশের সর্বোচ্চ কর্মকর্তাগণও রাস্তায় নেমেছেন নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে। থেকেছেন ভোররাত পর্যন্ত। আবার সকালেই ঈদগাহে মুসল্লিদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে দায়িত্ব পালন করেছেন তারা। মানুষের আনন্দঘন মুহূর্তগুলো নির্বিঘœ করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তারা।

 

 

ঈদের সরকারি ছুটিতে অফিস আদালত যখন বন্ধ, তখন পুরোপুরিই খোলা রয়েছে থানা-ফাঁড়ি, তদন্ত কেন্দ্র, সচল রয়েছে পুলিশের সব অফিস। ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, সিলেট, ময়মনসিংহ ও খুলনার মতো বড় শহরে মানুষের ফাঁকা ঘর-বাড়ির নিরাপত্তার চ্যালেঞ্জও মোকাবিলা করতে হচ্ছে তাদের। হঠাৎ নিরাপত্তা সমস্যা যাতে না হয় সেজন্য সর্বদা প্রস্তুত থাকতে হচ্ছে পুলিশকে। ব্যারাক এবং অস্থায়ী আবাসে ঈদ কাটছে বলে কোনো দুঃখ নেই তাদের। বাবা-মা, ভাই-বোন, স্ত্রী, ছেলে-মেয়ে রয়েছে অনেক দূরে। মানুষের কষ্ট লাঘবের জন্য তারা কাজ করে যাচ্ছেন।

Comments

comments