দেশজুড়ে

মায়ের স্বপ্ন ছিল জজ হবে রাজিব, আর মাকে বাঁচাতেই খুন হলেন তিনি

  • 95
    Shares

আশিকুর রহমান,টাঙ্গাইল প্রতিনিধি : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী ও ছাত্র নেতা মেহেদী মোস্তফা রাজিবের গ্রামের বাড়ী টাঙ্গাইলে ভূঞাপুরের গাড়াবাড়ি গ্রামে। বাবা গোলাম মোস্তফা দুলাল ও মা রূপা বেগমের দুই সন্তানের মধ্যে রাজিব বড় সন্তান।এসএসসি ও এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পাওয়া রাজিব ২০০৬-০৭ শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগে ভর্তি হন। দায়িত্ব পালন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের
জহুরুল হক হল শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি হিসেবে। মায়ের স্বপ্নপূরণে বিসিএস পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তিনি। বত্রিশের কাছাকাছি বয়সের তরতাজা প্রাণ অকালে ঝরে যাওয়ায় সেখানে চলছে শোকর মাতম।

বৃহস্পতিবার দুপুরে হঠাৎ করেই তার জীবনে নেমে আসে অমানিশার কালো মেঘ। আম পাড়াকে কেন্দ্র করে রাজিবের মায়ের সাথে চাচাতো ভাই জিহাদের সামান্য কথা কাটাকাটি হয়। বাড়িতে এসে কথাকাটাকাটির বিষয় শুনে জিহাদকে তার ঘরে বোঝাতে গেলে জিহাদ ক্ষিপ্ত হয়ে কিছু বুঝে উঠার আগেই রাজিবকে জিহাদ ছুরিকাঘাত করে।পরে হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। সন্তান হারিয়ে এখন দিশেহারা মা।

এলাকাবাসী জানান, ময়নাতদন্ত শেষে আজ আসরের নামাজের পর দাফন সম্পন্ন হয়েছে রাজীবের। সে ভদ্র ও মেধাবী হিসেবে এলাকার লোকজনের ভালোবাসায় সিক্ত ছিলো সে। শোকে কাতর এলাকাবাসীও চাইলেন উপযুক্ত বিচার।

এবিষয়ে ভূঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. রাশিদুল ইসলাম বলেন,রাতে নিহতের বাবা বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছে। আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে। দ্রুতই তাদের আইনের আওতায় আনার প্রত্যাশা তার।

শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন টাঙ্গাইল জেনারলে হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল চিকিৎসক সফিকুল ইসলাম সজিব।


  • 95
    Shares

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button