আন্তর্জাতিক

বিশ্বজুড়ে মৃত্যু পৌনে ৩ লাখ, আক্রান্ত ৪০ লাখ ছাড়াল


উৎপত্তির সাড়ে চার মাস ছুঁই ছুঁই। এরই মধ্যে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস বিশ্বের পৌনে তিন লাখের বেশি মানুষের প্রাণ কেড়েছে। শিকার ৪০ লাখেরও বেশি। যাতে চিকিৎসকসহ মন্ত্রী, এমপি এমনকি প্রধানমন্ত্রীরও রেহাই মিলেনি বিভিন্ন দেশের।

আজ শনিবার বাংলাদেশ সময় সকাল পর্যন্ত বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় মরণব্যাধিটিতে সংক্রমিত হয়েছেন প্রায় ৯৬ হাজার মানুষ। এতে করে মোট আক্রান্ত বেড়ে ৪০ লাখ ৯ হাজার ২৯১ জনে দাঁড়িয়েছে। প্রাণ হারিয়েছেন আরও সাড়ে ৫ হাজারের বেশি মানুষ। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা ২ লাখ হাজার ৭৫ হাজার ৯৬৯ জন। আর সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ১৩ লাখ ৮৫ হাজার ১৮৫ জন।

এর মধ্যে করোনা সবচেয়ে বেপরোয়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে নতুন করে আরও ২৯ হাজারের বেশি জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এতে করে আক্রান্ত বেড়ে পৌঁছেছে ১৩ লাখ ২১ হাজার ৭৮৫ জনে। প্রাণহানি ঘটেছে আরও ১ হাজার ৬৮৭ জনের। ফলে, মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৮ হাজার ৬১৫ জনে দাঁড়িয়েছে। যা যেকোনো দেশের তুলনায় সর্বোচ্চ।

মৃত্যুপুরী ইউরোপে আবারও অবনতির পথে করোনার পরিস্থিতি। লকডাউন শিথিল করায় কর্মমুখী মানুষ। এতে করে পুনরায় বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। সংক্রমণে স্পেন ও ইতালির থেকে সামান্য পিছিয়ে থাকলেও দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ডে থাকা যুক্তরাজ্যে আক্রান্ত ২ লাখ ১১ হাজার ৩৬৪। মৃত্যু ৩১ হাজার ২৪১ জনে ঠেকেছে।

দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আক্রান্তের দেশ স্পেনে মৃতের সংখ্যা ২৬ হাজার ২৯৯ জনে দাঁড়িয়েছে। আক্রান্ত বেড়ে ২ লাখ ৬০ হাজার ১১৭ জনে ঠেকেছে।

চীনের পরেই করোনার প্রাণকেন্দ্র হিসেবে রূপ নিয়েছিল ইতালিতে। গত মাসের মাঝামাঝি থেকে লকডাউন শিথিলের আগ পর্যন্ত বেশ উন্নতি দেখেছে দেশটি। কিন্তু কর্মক্ষেত্রে মানুষের জনসমাগম বাড়তে থাকায় আবারও সেখানে হু হু করে বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল। দেশটিতে প্রাণহানি ৩০ হাজার ছাড়িয়েছে। আক্রান্ত ২ লাখ ১৭ হাজার ১৮৫ জন।

প্রতিদিনিই রেকর্ড সংখ্যক সংক্রমণ দেখছে রাশিয়া। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় সাড়ে ১০ হাজারের বেশি মানুষ করোনার শিকার হয়েছেন। এতে করে মোট আক্রান্ত ১ লাখ প্রায় ৮৭ হাজার ৮৫৯ জনে। গত একদিনে ৯৮ জনের মৃত্যু হয়েছে রাশিয়ায়। এ নিয়ে প্রাণহানি ১ হাজার ৭২৩ জনে দাঁড়িয়েছে।

ভয়াবহ অবস্থায় দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ব্রাজিলেও। দেশটিতে নতুন করে ১০ হাজার ১৯৯ জন করোনার শিকার হয়েছে। আক্রান্ত বেড়ে ১ লাখ ৪৫ হাজার ৮৯২ জনে পৌঁছেছে। মারা গেছেন সেখানে প্রায় ১০ হাজার মানুষ।

দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে খারাপ অবস্থায় ভারত। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৬০ হাজার। মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৯৮৫ জনের।

আর বাংলাদেশে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেয়া তথ্যানুযায়ী গতকাল শুক্রবার পর্যন্ত করোনার শিকার হয়েছেন ১৩ হাজার ১৩৪ জন। তাদের মধ্যে ২০৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ হয়ে হয়েছেন ২ হাজার ১০১ জন।


এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন

Back to top button