সিরাজদিখানে যুব মহিলা লীগের নেত্রী ইভটিজিংয়ের শিকার

0
18

সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি: মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে ইভটিজিংয়ের শিকার হয়েছেন কোলা ইউনিয়ন যুব মহিলা লীগের যুগ্ন সম্পাদক সাখী আক্তার। গত বুধবার একই গ্রামের আব্দুল মান্নান খানের ছেলে মোহাম্মদ কাওসার খান তাকে রাস্তায় একা পেয়ে বিভিন্ন ধরনের অশ্লীল কথা বলে এবং কু-প্রস্তাব দেয়।

সাখী আক্তার বলেন, আমার স্বামী গত তিন বছর আগে মারা যায়। আমি আমার ছেলে মেয়ে নিয়ে থাকি। বিভিন্ন কারনে আমাকে বাইরে যেতে হয়। বাইরে গেলেই কাওসার আমাকে প্রচুর ডিসটার্ব করে। আমাকে রাস্তায় একা পেল্ইে অশীøল মন্তব্য করে এবং বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে কু-প্রস্তাব করে। আমি প্রতিবাদ করলে আমার ছেলে-মেয়েকে হুমকি দেয়। আমি আজ (শনিবার) থানায় গিয়ে অভিযোগ দিয়েছি।

জানাযায়, মো. কাওসার খানের বড় ভাই মো. আবু তাহের কোলা ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি। বর্তমানে কাওসার ছাত্রলীগের ছত্রছায়ায় বিভিন্ন অপকর্ম করে যাচ্ছে। আরও জানাযায় কাওসার বর্তমানে সিরাজদিখান উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক পদপ্রার্থী।

এব্যাপারে সিরাজদিখান উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক পারভেজ চোকদার পাপ্পু বলেন, কাওসার ভালো ছেলে না। তার পুরা পরিবার বি.এন.পির রাজনীতির সাথে জড়িত। জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক ফয়েজ আহমেদ পাভেলের ছত্রছায়ায় সে বিভিন্ন অপকর্ম করে এবং উপজেলা ছাত্রলীগে যোগদিতে পেরেছে।

মো. কাওসার খানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি এসব করি নাই। পারিবারিব সমস্যার কারনে সে আমাকে ফাসাচ্ছে। তার সাথে আমার বয়সের পার্থক্য ৩০ বছরের।

কোল ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মো. সুজন বলেন, এই ছেলের বিরুদ্ধে আরও অনেক অভিযোগ আছে। তারা ৫-৬ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অপকর্ম করে। সাখী ইসলামকে উত্যক্ত করার কথা আমাকে বলেছে। আমি কাওসারের বাসায় কথা বলেছি। তারা কোন পদক্ষেপ নেয়নি।

সিরাজদিখান থানার ওসি (অপারশন) আজিজুল হাওলাদার বলেন, অভিযোগ পেয়েছি । তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।