হিজলায় হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট এর বিচারের দাবীতে মুক্তিযোদ্ধার সংবাদ সম্মেলন

0
7

হিজলা প্রতিনিধি: বরিশালের হিজলা উপজেলার ধুলখোলা ইউনিয়নের সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সিদ্দিকুর রহমান রাড়ীর বাড়িতে জামাল বাহিনী হামলা চালিয়ে মুক্তিযুদ্ধা সিদ্দিক রহমান কে এলোপাথাড়ি মারধর, বসতঘর ভাঙচুর, লুটপাট করে নিয়ে যায় নগদ টাকাসহ কয়েক লক্ষ টাকার স্বর্ণালঙ্কার।

৮ জুন বেলা সাড়ে ১২, টার দিকে জামাল ঢালীর নেতৃত্বে নিজাম উদ্দিন (নিজা), সালাউদ্দিন (সালা), আফসার ঢালী, আনোয়ার ঢালী, ইয়াসিন ও বাবু ঢালী সহ ১৫-২০ জনের একটি সন্ত্রাসী বাহিনী এই হামলা চালায়।হামলায় গুরুতর আহত হয় বীরমুক্তিযোদ্ধা সিদ্দিকুর রহমান রাড়ী, তার ভাইয়ের ছেলে এবং ছেলের স্ত্রী মাকসুদা বেগম।

হামলা করেই ক্ষান্ত হয়নি সন্ত্রাসী বাহিনী অবরুদ্ধ করে রাখে কয়েকঘণ্টা এই মুক্তিযোদ্ধার বাড়ি। পরে মেহেন্দিগঞ্জ থানার এস আই নাসির উদ্দিন এর নেতৃত্বে একটি চৌকস পুলিশ দল মুক্তিযোদ্ধা সিদ্দিকুর রহমান রাড়ী ও তার পরিবারকে উদ্ধার করে মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়।

এছাড়াও জামাল বাহিনীর হামলায় পঙ্গু হয়ে জীবন যাপন করছে একই এলাকার নান্টু বেপারী ও খলিল বেপারী সহ অনেকেই।

জামাল বাহিনীর নিজু ও সালার হাত থেকে রক্ষা পায়নী আলীগঞ্জ বাজারের সবজি ব্যবসায়ী রহমান সিকদার, তরমুজ ও কাঁঠাল ক্রয় করে নিয়ে যাওয়ার সময় টাকা চাইলে এলোপাথারী মারধর করে। বিষয়টি স্থানীয় সংবাদ কর্মীদের অবহিত করলে ঐ দিনেই রহমান সিকদারকে তুলে নিয়ে আবারও মারধর করে মিথ্যা ভিডিও তৈরি করে, এবং প্রাণাশের হুমকি দেয়। জামাল বাহিনীর আতঙ্কে এলাকা অর্ধশতাধিক পরিবার বিভিন্ন জায়গায় আত্মগোপনে রয়েছে।

জামাল বাহিনীর সালাউদ্দিন ও নিজাম এর ভয়ে যুবতী মেয়ে ও প্রবাসীদের স্ত্রীরা নিদ্রাহীন ভাবে দিনযাপন করছে।
মুক্তিযুদ্ধা সিদ্দিকুর রহমান সংবাদ সম্মেলনে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে বলেন আমরা এই সন্ত্রাসীদের হাত থেকে বাঁচতে চাই এবং প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন এদের দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবি জানান।

ধুলখোলা ইউনিয়নের নাম প্রকাশে একাধিক ব্যক্তি বলেন আমরা যদি জামাল বাহিনীর বিরুদ্ধে কিছু বলি তাহলে আমরা এ এলাকায় থাকতে পারব না ঐ বাহিনীর হাতে সব সময় দা, রামদা সহ বিভিন্ন অস্ত্রনিয়ে মহড়া দিয়ে চাঁদাবাজী সহ নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে যা পুলিশের অজানা নয়। তারা আরো বলেন এই জায়গাটি হিজলা মেহেন্দিগঞ্জ এর বডার এলাকা।

ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম বেপারী বলেন জামাল ঢালী আওয়ামীলীগ থেকে বহিষ্কৃত। জামাল বাহিনীর হাতে এ পর্যন্ত দুই শতাধিক সাধারণ মানুষ নির্যাতনের শিকার হয় এদের মধ্যে অনেকেই পগু হয়ে জীবন যাপন করছে। জামাল বাহিনীর অত্যাচারে গোটা ধুলখোলা বাসী অতিষ্ঠ। হামলার ঘটনায় মেহেন্দিগঞ্জ থানায় ১৪ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের হরেছে। হিজলা থানা অফিসার ইনচার্জ অসীম কুমার সিকদার এর কাছে মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন মুক্তিযোদ্ধা ছিদ্দিকুর রহমার আমাদের হিজলার কিন্তু নদী ভেঙ্গে এখন তার বাড়ি বডার এলাকার মেহেন্দিগঞ্জের সলদি গ্রামে।