প্রবাস

এসোসিয়েশন অব মন্ট্রিয়লের জমজমাট বারবিকিউ পার্টি

  • 80
    Shares

মোঃ কবির মোল্লা, কানাডা ব্যুরো প্রধানঃ ঐতিহ্যবাহী সংগঠন বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব মন্ট্রিয়লের জমজমাট আয়োজনে প্রায় পাঁচশ’ প্রবাসী বাংলাদেশীর অংশগ্রহনে উচ্ছ্বাস আনন্দে সফলতার সাথে সম্পন্ন হয়েছে বারবিকিউ পার্টি।

গত ১১জুলাই রবিবার মন্ট্রিয়লের জেরী পার্কের দৃষ্টিনন্দন লেকের পাড়ে বিভিন্ন ধরনের মজাদারসব খাবার, গান ফানস্পোর্টস, আনন্দ আড্ডায় বাৎসরিক বারবিকিউ পার্টিটি অনুষ্ঠিত হয়।

গত বছর একই স্থানে সংগঠনের বারবিকিউ পার্টি অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এবছরেই পর পর দু’টি বারবিকিউ পার্টি অনুষ্ঠিত হয়। রবিবারের পার্টিটিই ছিল সংগঠনের বছরের সবচেয়ে বড় আয়োজন।

দুপুর থেকে শুরু হওয়া ‘বিবিকিউ টাইম’ নামে বারকিউ পার্টিটি রাত ৯টা পর্যন্ত চলে। হটডগ বার্গার চিকেন ও বিফসহ বারবিকিউ গ্রীল খাবার ও দেশী স্টাইলে স্টার কাবাবের বিরানী ঝাল মুড়ি চা তরমুজ ইত্যাদি খাবারে আপ্যায়ন করা হয় আগত অতিথিদের। পরিবার পরিজন বন্ধুবান্ধব ও কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ করোনার পরে সবাই একত্রে সুন্দর একটি ঝলমলে দিন অতিবাহিত করেন সংগঠনের অতিথিপরায়ন নবনির্বাচিত কর্মকর্তাদের আন্তরিক আপ্যায়নে। সংগঠনের নাম লেখা মাস্ক বিতরণ করা হয় অতিথিদের মাঝে।দীর্ঘদিন পরে এমন বড় আয়োজনে একটি ওপেন বারবিকিউ অনুষ্ঠান আয়োজন করে সফলভাবে সম্পন্ন করায় আগত অতিথীরা সংগঠনের কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানান। দুঃসহ লকডাউনের পরে সুশৃঙ্খল ও সুচারু আয়োজনের এই অনুষ্ঠানে মজাদার খাবার ফানস্পোর্টস গান আর আড্ডায় দিনভর মেতে ছিলেন অতিথিরা।
সন্ধ্যার আলো-আঁধারিতে ক্যাম্পফায়ার স্টাইলে অনুষ্ঠানের সর্বশেষ অংশটুকু একুইস্টিক গীটারের ঝংকারে সুরের মূর্ছনায় সমাপ্তি ঘটে।

প্রায় পাঁচশ’ অতিথির অনুষ্ঠানটি আপ্যায়নে ছিলেন, সহসভাপতি রাজ মাহবুব, সহসভাপতি মাইজুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ ফায়েক, ব্যাবস্থাপনায় ছিলেন সহসভাপতি শাহদাৎ হোসেন শিল্পী, সহসভাপতি মোশারফ হোসেন বাদল, কার্যকরী সদস্য নাজমুল হাসান সেন্টু ও মিজান রহমান।
তত্ত্বাবধায়নে ছিলেন যুগ্ম-সম্পাদক মোরসালিন নীপু, অর্থ সম্পাদক বদরুল চৌধুরী, আতাউর রহমান।
সাংস্কৃতিক ব্যাবস্থাপনায় ছিলেন সাংস্কৃতিক সম্পাদক জুবায়ের টিপু ও সাংস্কৃতিক কো-অর্ডিনেটর সোহান খান।

সহযোগিতায় সহ-সভাপতি আরিফ খন্দকার, রাহাত খন্দকার, মাসুম আহমেদ ও হায়দার ইলিয়াস, সালেহিন অপু, তমিজ উদ্দিন লিপন কামরুজ্জামান ও মজিবর রহমান।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন রনজিত মজুমদার। শেষের গানের অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন শামসাদ রানা। দৃষ্টিনন্দন মাস্ক ডিজাইন ও স্পন্সর করেন সহসভাপতি পলাশ হাওলাদার। সাউন্ডে শংকর চৌধুরী, পোস্টার, ব্যানার ও আনুসাঙ্গিক ডিজাইনে ক্রিয়েশন ডিজাইন, ডেকোরেশনে পার্টি টাইমস এবং অন্যান্য সহায়তায় মোহন তানভির।

সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বক্তব্য রাখেন সাবেক সভাপতি প্রিয় সংগঠক দেওয়ান মনিরুজ্জামান।
সবশেষে সংগঠনের সভাপতি হাফিজুর রহমান ও সাধারন সম্পাদক শাকিল আহমেদ সমাজের বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ বিভিন্ন সংগঠনের কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও স্পন্সরদের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।


  • 80
    Shares

এই বিভাগের আরও খবর পড়ুন