ইরাক থেকে সৈন্য প্রত্যাহার করছে যুক্তরাষ্ট্র

0
9

সামনের মাসগুলোতে ইরাক থেকে নিজেদের সৈন্য সংখ্যা কমিয়ে আনার ঘোষণা দিয়েছে পেন্টাগন। শুক্রবার এক যৌথ বিবৃতিতে এ ঘোষণা দেয় ইরাক ও যুক্তরাষ্ট্র। যদিও মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহার করে নিতে কয়েকমাস আগেই জোরালো দাবি উঠেছিল ইরাকি পার্লামেন্টে। খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র

ইরাক অঞ্চল থেকে উগ্র সুন্নী জঙ্গীগোষ্ঠী আইএসআইএস’কে অনেকটাই বিতাড়িত করতে পারায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, “আইএসআইএস’র হুমকি বিতাড়ণে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হওয়ায় ইরাক থেকে আসছে মাসগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্যবাহিনী প্রত্যাহার শুরু হবে। এই ব্যাপারে দুই দেশ মতৈক্যে পৌঁছেছে।”

যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, “যুক্তরাষ্ট্র জোর দিয়ে আবার বলছে, ইরাকে স্থায়ী সামরিক ঘাঁটি স্থাপন বা উপস্থিতি রাখার কোনো অভিপ্রায় বা ইচ্ছা তাদের নেই।”

বিবৃতিতে ইরাক বলেছে, ‘এই সময়ে যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্যবাহিনীর ঘাঁটিগুলো ইরানের হামলা থেকে সুরক্ষিত রাখার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে ইরাক।’

উল্লেখ্য, ইরাক পরিস্থিতি নিয়ে গত এক দশকের বেশি সময়ের মধ্যে বৃহস্পতিবার দেশটির সঙ্গে প্রথম কোনো কৌশলগত সংলাপে বসে যুক্তরাষ্ট্র। করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে ভার্চুয়াল মাধ্যমে হয় এ সংলাপ। বৈঠক শেষে মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহার নিয়ে যৌথ বিবৃতি দেয় উভয় দেশ।

সম্প্রতিক মাসগুলোতে বাগদাদে ড্রোন হামলা বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে ইরাকি পার্লামেন্টে মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহার নিয়ে সর্বসম্মত দাবি ওঠে। জানুয়ারিতে বাগদাদে অতর্কিত এক মার্কিন ড্রোন হামলায় ইরানের কুদস বাহিনীর প্রধান জেনারেল কাসেম সুলেমানিকে হত্যার পর এই দাবি আরও জোরালো হয়।